আলুর উপকারিতা

আলুর ২০টি উপকারিতা ও অপকারিতা জেনে নিন!

crickex banner ad

আলু আমাদের সকলেরই পছন্দের একটি খাদ্য বা সবজি। আলু এমন একটি সবজি যা নিত্যদিনের খাদ্য তালিকায় ব্যবহার করা হয়। শরীরে পুষ্টি জোগানো থেকে শুরু করে রূপচর্চা-সবকিছুতেই রয়েছে আলুর উপকারিতা। তাই জেনে নিন আলুর উপকারিতা, গুনাগুন এবং কিছু অপকারিতা সম্পর্কে। 

আলুর উপকারিতা ও অপকারিতা

আলু পুষ্টি উপাদানে ভরপুর একটি খাদ্য। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন এ  বি ও সি, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, এন্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফাইবার সহ কার্বোহাইড্রেট যা শরীর এবং ত্বকের জন্য জরুরি। পুষ্টিগুনের দিক থেকে আলু যেমন উপকারী তেমনি রূপচর্চাতেও অতুলনীয়। চলুন এবার দেখে নেয়া যাক আলুর উপকারিতা গুলো কি কি। 

আলুর উপকারিতা

১. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে  

আলুতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি যা এন্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। তাই যাদের শরীর রোগা বা দুর্বল তারা নিয়মিত আলু খান উপকার পাবেন। 

২. উচ্চ রক্তচাপ কমায়

উচ্চ রক্তচাপ কিংবা হাইপারটেনশন কমাতে আলু অত্যন্ত উপকারী। কারণ আলুতে সোডিয়াম এবং পটাশিয়াম দুটোই সঠিক মাত্রায় থাকে যা রক্তচাপ সহজেই নিয়ন্ত্রণ করে। 

৩. হাড়ের স্বাস্থ্য ভালো রাখে

আলু হাড় মজবুত করতে এবং হাড়ের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করে। আলুতে বিদ্যমান ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং জিঙ্ক হাড়ের গঠন ও হাড়কে শক্ত করে। 

৪. হার্ট সুস্থ রাখতে

হার্ট সুস্থ রাখতে আলু খান। কারণ আলুতে রয়েছে ফাইবার, ভিটামিন সি, ভিটামিন বি৬ এবং পটাশিয়াম যা রক্তে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। ফলে হার্ট সুস্থ থাকে। 

৫. ওজন নিয়ন্ত্রণে 

আলু ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। আপনি যদি ওজন কমাতে চান তবে খাদ্য তালিকায় আলু যোগ করুন। কারণ আলুতে অল্প পরিমাণ ফ্যাট থাকে যা খাবার পর পেট ভরা থাকলেও ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে। 

৬. পেটের সমস্যা দূর করতে 

পেটের সমস্যা দূর করতে আলু বেশ উপকারী। পেটের বিভিন্ন সমস্যা যেমন পেট ফাঁপা, ডায়রিয়া, ডিসেন্ট্রি বা বদহজম হলে আলু সেদ্ধ করে খান উপকার পাবেন। 

৭. কিডনির পাথর থেকে মুক্তি পেতে 

আলু প্রোটিন যুক্ত খাবার। তাই আলু খেলে শরীরে ইউরিক এসিডের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। আলু খাওয়ায় হজম ক্ষমতা ও পাচনতন্র ঠিক থাকে তাই শরীরে পানির পরিমাণ সঠিক মাত্রায় থাকে। ফলে কিডনিতে পাথর হওয়ার আশঙ্কা থাকে না। 

৮. হজম ক্ষমতা বাড়ায় 

আলু হজম ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। কারণ আলু ফাইবার যুক্ত খাবার। তাই পেটের সমস্যা দূর করতে আলু খান। এছাড়াও আলু কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে থাকে। 

৯. ক্যান্সার হতে মুক্তি পেতে 

আলু ক্যান্সার হওয়া থেকে মুক্তি দেয়। আলুতে থাকা ফলেট ডিএনএ তৈরি করে এবং তা মেরামত করে থাকে। ফলে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী কোষগুলো নষ্ট হয়ে যায়। 

১০. অনিদ্রা দূর করে 

আলুতে আছে ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও পটাশিয়াম। এই খনিজ পদার্থগুলো শরীরে সঠিক মাত্রায় থাকলে শরীরকে আারাম প্রদান ও স্নায়ু শান্ত রাখে ফলে ঘুমের কোন সমস্যা থাকে না। তাই অনিদ্রা বা ঘুমের সমস্যা দূর করতে আলু খান। 

১১. দাঁত ও মাড়ির সমস্যা দূর করতে 

আলুতে রয়েছে ভিটামিন সি যা দাঁত ও মাড়ির সমস্যা দূর করতে বেশ উপযুক্ত। তাই এক টুকরো আলু নিয়ে রোজ দাঁত পরিস্কার করুণ এতে দাঁত ও মাড়ির যেকোনো সমস্যা দূর হবে। 

১২. রূপচর্চায়

আলু একটি পুষ্টিকর খাবার। এতে থাকা ভিটামিন ও মিনারেল ত্বকের জন্য বেশ উপকারী। আলুর রস মুখে লাগালে ত্বকের রিংকেল, রোদে পোড়া দাগ, বয়সের ছাপ ইত্যাদি দূর করে ত্বক কে উজ্জ্বল ও লাবন্য করে তোলে। 

ভিডিওঃ আলু খাওয়ার স্বাস্থ্য উপকারিতা ও অপকারিতা।

আলুর গুনাগুণ 

আলু পুষ্টিগুনে ভরপুর একটি খাদ্য। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থেকে শুরু করে শরীরের নানা ধরনের সমস্যা দূর করে থাকে আলু। 

রূপচর্চাতেও আলুর উপকারিতা অতুলনীয়। 

আলু সেদ্ধ করে, তরকারি রান্না করে এবং আলুর ভর্তা করেও খাওয়া যায়। আলু পেটের সমস্যা দূর করে থাকে। 

আলুতে রয়েছে ভিটামিন সি যা এন্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। আলু কিডনিতে পাথর জমতে দেয় না। আলুতে রয়েছে অ্যামায়নো এসিড, ভিটামিন বি কমপ্লেক্স এবং ওমেগা থ্রি সহ নানা ধরনের 

ফ্যাটি এসিড যা মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। 

এছাড়াও আলুতে রয়েছে আয়রন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন এবং জিঙ্ক যা ত্বকের যত্নে বেশ উপকারী। করলার ১৬ টি উপকারিতা ও অপকারিতা জেনে নিন!

আলুর অপকারিতা 

অতিরিক্ত আলু খেলে ডায়রিয়া হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আলুর উচ্চ গ্লাইসেমিক রক্তে শর্করার ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। 

বেশি পরিমাণে আলু খেলে রক্তে শর্করা ও ইনসুলিনের মাত্রা বৃদ্ধি পায় ফলে ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীদের কম পরিমাণে আলু খেতে হবে। 

কুঁচকে যাওয়া আলু বা সবুজ রঙের আলুতে বিষাক্ত যৌগ থাকে যা শ্বাসকষ্ট, মাথা ব্যথা, এবং রক্ত সঞ্চালনে সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। 

গর্ভবতী মহিলার জন্য কাঁচা আলু খাওয়া ক্ষতিকর। তবে সেদ্ধ আলু খেতে পারেন। 

প্রতিদিন আলু খেলে ওজন বৃদ্ধি হতে পারে। তাই অন্যান্য খাবারের মতো আলু পরিমাণ মতো খেতে হবে। 

শেষ কথা

 সব শেষে বলা যায়, আলু সারা বিশ্বেই পছন্দের একটি খাবার যা সারা বছরই পাওয়া যায়। আলু এমন একটি খাবার যা শিশু থেকে বৃদ্ধ পর্যন্ত সকলের জন্যই আলুর উপকারিতা অতুলনীয়। আলুর পুষ্টিগুন এবং উপকারিতার কথা ভেবে প্রতিদিন সঠিক পরিমাণে আলু খান উপকার পাবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top