এক রাতে ব্রণ দূর করার উপায়

এক রাতে ব্রণ দূর করার উপায় ও অভিনব সব কৌশল জেনে নিন!

এক রাতে ব্রণ দূর করার উপায় জানতে চান? প্রাকৃতিক আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে একাধিক উপায় আছে ব্রণ দূর করার। তাহলে আসুন জেনে নিই ব্রণ সম্পর্কে অজানা সব তথ্য। 

একরাতে ব্রণ দূর করতে টি-ট্রি অয়েল বা স্যালিসাইলিক এসিড দিয়ে তৈরি কোন ক্রিম ব্রণের ওপর লাগিয়ে সারারাত রাখুন ব্রণ কমে যাবে। 

এছাড়াও ব্রণ দূর করার কিছু ঘরোয়া টোটকা আছে যা অনুসরণ করলে এক রাতেই ব্রণ দূর হবে।

ভিডিওঃ দ্রুত ব্রণের দাগ দূর করার বাছাইকৃত ১০টি উপায় ।। ব্রণ থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়

এক রাতে ব্রণ দূর করার উপায় 

ব্রণ একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা যার কারনে অনেকেই দুশ্চিন্তাই পড়ে যায়। কোন উৎসব বা অনুষ্ঠানের আগে মুখে ব্রণ হলে সৌন্দর্য মলিন হয়ে যায়। এক্ষেত্রে করণীয় কী তা নীচে উল্লেখ করা হলো। 

১. চন্দন গুড়ো 

এক রাতে ব্রণ দূর করার উপায় গুলোর মধ্যে চন্দন গুড়োর জুড়ি নেই। প্রদাহ, ক্ষত এবং ব্যথা সারতে চন্দন গুড়ো কার্যকর ভুমিকা পালন করে। 

এক্ষেত্রে চন্দন কাঠ ঘসে চন্দন বের করে বা চন্দন গুড়ো গোলাপ জল বা সাধারণ পানি দিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট ব্রণের ওপর লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে টানটান হয়ে আসলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। 

২. নিম পাতা ও গোলাপ জল 

গোলাপ জল ত্বক সতেজ আর স্নিগ্ধ রাখে। নিমপাতা ত্বকে এন্টিসেপ্টিকের কাজ করে কিছু পরিমাণ নিমপাতা ২ থেকে ৩ মিনিট পানিতে ফুটিয়ে নিন। ফুটানো নিমপাতা ব্লেন্ড করে তার সাথে ২ চা চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে ব্রণের ওপর লাগিয়ে দিন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণ যেমন দ্রুত শুকোবে, ব্যথাও কমে যাবে। 

৩. পাতিলেবু 

লেবুতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি এবং সাইট্রিক এসিড যা ব্রণ সারতে এবং দাগ দূর করতে বিশেষ ভুমিকা পালন করে। 

এক্ষেত্রে দুটি পাতিলেবু চিপে রস বের করে তার সাথে ২ চা চামচ পানি মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণে এক টুকরো তুলা ভিজিয়ে ব্রণের ওপর লাগিয়ে দিন। এতে খুব দ্রুত ব্রণ শুকিয়ে যাবে।  

৪. তুলসি পাতা ও হলুদ 

তুলসি পাতার উপকারিতা সম্পর্কে সকলেরই জানা। হলুদে রয়েছে এন্টিসেপ্টিক গুন।

এক্ষেত্রে ১৫ থেকে ২০ টা তুলসি পাতা ভালভাবে ধুয়ে বেটে নিন। এর সাথে ২ চামচ পরিমাণ কাঁচা হলুদ বেটে একত্রে মিশিয়ে ব্রণের ওপর লাগিয়ে অন্তত ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি প্রতিদিন ৩ বার ব্যবহার করুন। 

৫. মধুর ব্যবহার

আয়ুর্বেদিক প্রায় সকল ওষুধেই মধু ব্যবহার হয়ে থাকে। কারন মধুতে রয়েছে ব্যাক্টেরিয়া ধ্বংসকারী উপাদান। ১ চা চামচ খাঁটি মধুতে এক টুকরো তুলা ভিজিয়ে ব্রণের ওপর লাগিয়ে রাখুন। আধাঘন্টা পর ধুয়ে ফেলুন। এই পদ্ধতিটি কয়েক বার ব্যবহারেই ব্রণ কমতে শুরু করবে। 

ছেলেদের মুখের ব্রণ দূর করার উপায় 

ছেলেদের ত্বক মেয়েদের চেয়ে অনেক বেশি আলাদা। তাই এর জন্য চিকিৎসাও দরকার অন্যরকমের। ছেলেদের মুখের ব্রণ দূর করার কিছু প্রাকৃতিক উপায় সম্পর্কে জেনে নিন। 

পানি 

ব্রণ দূর করার ক্ষেত্রে পানির গুরুত্ব সর্বাধিক। দৈনিক ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করুন। এতে আপনার শরীর ও ত্বক দুটোই সুস্থ এবং সতেজ থাকবে। 

ডিমের সাদা অংশ 

রাতে শোয়ার আগে ব্রণের ওপর ডিমের সাদা অংশ লাগিয়ে আধাঘন্টা পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণের সমস্যা অনেকটাই কমে যাবে। 

গ্রিন টি 

ব্রণের ক্ষেত্রে গ্রিন টি খুবই উপকারি।গ্রিন টি গরম পানি দিয়ে বানিয়ে ঠান্ডা করে তুলা দিয়ে ব্রণের ওপর লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণ দিন দিন কমে আসবে। 

পুদিনা পাতা 

পুদিনা পাতা ব্রণের জন্য অত্যন্ত উপকারি। পুদিনা পাতা বেটে ব্রণের ওপর লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণ কমে যাবে। 

নাকের ব্রণ দূর করার উপায় 

বর্তমানে ব্রণ একটি প্রচলিত সমস্যা। অনেক সময় মুখে ব্রণ না হয়ে নাকের ওপর দুই একটা ব্রণ দেখা যায়। এই ব্রণের ব্যথা প্রচন্ড হয় এবং বিশ্রী দেখায়। এ ব্যাপারে চিন্তার কারন নেই।  মাত্র তিনটি উপায়ে এক রাতেই পুরোপুরি দূর হবে নাকের ব্রণ। জেনে নিন কৌশল-

রসুন ও মধু

রসুন ও মধু দুটোতেই রয়েছে ব্যাক্টেরিয়া ধ্বংসকারী উপাদান। রসুনের কয়েকটি কোয়া ব্লেন্ড করে তার সাথে ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। প্যাকটি ব্রণের ওপর লাগিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণ পুরোপুরি শুকিয়ে যাবে। 

টুথপেস্ট

টুথপেস্টে থাকে মেনথল যা ব্রণ শুকাতে সাহায্য করে। এক রাতে ব্রণ দূর করার উপায় গুলোর মধ্যে টুথপেস্ট একটি কার্যকর পদ্ধতি। সামান্য পরিমাণ টুথপেস্ট নিয়ে ব্রণের ওপর লাগিয়ে রাখুন সারারাত। সকালে ঘুম থেকে ওঠে ভালো ক্লিনজার দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন ব্রণ পুরোপুরি শুকিয়ে গেছে। 

বেকিং সোডা 

বেকিং সোডা ত্বকের মরা কোষ দূর করতে এবং ব্রণের জীবাণু ধ্বংস করতে সাহায্য করে। পরিমাণ মতো বেকিং সোডার সঙ্গে সমপরিমাণ পানি মিশিয়ে ঘন করে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট ব্রণে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে হালকা ম্যাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণ পুরোপুরি দূর হয়ে যাবে। 

কপালের ব্রণ দূর করার উপায় 

মেয়েদের ক্ষেত্রে বেশিরভাগ সময় কপালে ব্রণ উঠতে দেখা যায়। কপালের ব্রণ দূর করার দুটি কার্যকর উপায় জেনে নিন। 

১.লেবু 

কপালে ব্রণ হলে ২ চা চামচ লেবুর রস নিয়ে কপালে লাগিয়ে ৫ থেকে ৭ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ব্রণ দূর হয়ে যাবে। 

২.গোলমরিচ 

কপালের ব্রণ দূর করতে গোলমরিচ বেশ উপকারি। ১ চা চামচ গোলমরিচ বেটে তার সাথে ২ চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে কপালে লাগিলে ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন ব্রণ শুকিয়ে গেছে।

ব্রণ দূর করার ওষুধের নাম

ছেলে হোক বা মেয়ে, আজকাল সকলেই ব্যস্ত রূপচর্চা নিয়ে। কারন সকলেই চাই তার ত্বক যেন উজ্জ্বল, কোমল এবং দাগহীন হয়। বর্তমানে যারা ব্রণ সমস্যায় ভুগছেন, তারা অনেক টেনশানে আছেন এবং ভাবছেন কিভাবে ব্রণ থেকে মুক্তি পাবো? 

ব্রণ দূর করার অনেক ঔষধ রয়েছে। সেগুলোর মধ্যে কার্যকরী ১০ টি ঔষধের নাম উল্লেখ করা হলো। 

১.Acnegel

২.Aclene Plus gel

৩.Adaben Duo gel

৪.Fresh look gel Cream

৫.Nomark gel

৬.Fona Plus

৭.Pimplex gel Cream

৮.Adgar gel

৯.Fona Cream

১০.Adagel প্লুস

[বিঃদ্রঃ ডাক্তারের পরামর্শ ব্যাতীত গ্রহণযোগ্য নয়।] 

তৈলাক্ত ত্বকের ব্রন দূর করার উপায় 

তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যা প্রতিনিয়ত লেগেই থাকে। তৈলাক্ত ত্বকে খুব সহজেই ধুলোবালি আটকে যায়। ফলে ব্যাক্টেরিয়া সহজেই আক্রমণ করে। 

এছাড়াও অতিরিক্ত ধুলোবালি, ঘাম, শুস্কতা ইত্যাদি কারনে প্রায় সারা বছর ব্রণ হয় তৈলাক্ত ত্বকে। এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে দুটি ঘরোয়া প্যাক ব্যবহার করুন তৈলাক্ত ত্বকের ব্রন দূর হয়ে যাবে। তাহলে জেনে নিন কি করতে হবে? 

লেবুর রস ও মধু

লেবুর রস ত্বকের ক্ষতিকর ব্যাক্টেরিয়া ধ্বংস করে এবং বিভিন্ন দাগ দূর করতে সাহায্য করে। লেবুতে থাকা সাইট্রিক এসিড ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর করে ব্রণের সমস্যা দূর করে। আর মধুর প্রাকৃতিক উপাদান ত্বকের আদ্রতা ধরে রাখে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। 

এক্ষেত্রে ১ চা চামচ লেবুর রস ও ১ চামচ মধু একত্রে মিশিয়ে একটি প্যাক তৈরি করুন। প্যাকটি মুখে লাগিয়ে ১৫ থেকে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন ব্যবহারে কার্যকর ফল পাবেন। 

বেসন ও টকদই 

বেসনে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ও প্রোটিন যা ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর করে ত্বককে উজ্জ্বল ও দীপ্তিময় করে তোলে। আর টকদই ত্বকের ব্রন দূর করার পাশাপাশি ত্বককে প্রাকৃতিক ভাবে নরম ও মসৃণ করে। 

এক্ষেত্রে ২ চা চামচ বেসন আর ১ চামচ টকদই নিয়ে ভালভাবে ফেটিয়ে নিন। এর সাথে কয়েক ফোটা লেবুর রস ও এক চিমটি হলুদের গুড়ো মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। প্যাকটি মুখে লাগিয়ে শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে হালকা গরম পানি দিয়ে আলতো ভাবে ঘসে তুলুন। এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালভাবে ধুয়ে নিন। প্যাকটি সপ্তাহে দুই দিন ব্যবহার করুন। ব্রণের সমস্যা কমে গেলে মাসে দুই দিন ব্যবহার করুন।  

শেষ কথা 

ওপরে উল্লেখিত প্রাকৃতিক উপাদান গুলো এক রাতে ব্রণ দূর করার উপায় হিসেবে বেশ কার্যকর। ঘরোয়া পদ্ধতির পাশাপাশি পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন। এতে শরীর থেকে যাবতীয় বিষাক্ত পদার্থ বের হয়ে যাবে। এছাড়াও টাটকা শাক সবজি ও ফলমূল গ্রহণ করুন। এতে স্বাস্থ্য ও ত্বক সুস্থ  এবং সতেজ থাকবে।

আপনার মনে কোন প্রশ্ন থাকলে এখানে করুন!

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top