এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা ও এর উপকারিতা সহ গুণাগুণ জেনে নিন!

এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা ও এর উপকারিতা  সম্পর্কে জানার আগ্রহ আমাদের অনেকেরই। বিশেষ করে মেয়েরা প্রতিনিয়তই গুগলে বিষয়টি অনুসন্ধান করে চলেছেন। চলুন একনজরে দেখে নেওয়া যাক এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা ও এর উপকারিতা । 

ইংরেজিতে এই উদ্ভিদের নাম এলোভেরা বলা হলেও গ্রাম বাংলার মানুষের কাছে এটি ঘৃতকুমারী নামে পরিচিত। এলোভেরা একটি প্রাকৃতিক ভেষজ উদ্ভিদ। বিভিন্ন প্রকার অ্যামিনো অ্যাসিড ও ভিটামিনের সংমিশ্রণ রয়েছে এতে। এলোভেরার গুণাগুণ অনেক। আজকের আর্টিকেলে আমরা এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা এর উপকারিতা সম্পর্কে জানার চেষ্টা করবো। 

নিজেকে আকর্ষণীয় করে তুলতে আপনি এই প্রাকৃতিক উদ্ভিদের উপর চোখ বন্ধ করে ভরসা করতে পারেন। এলোভেরা শুধু ত্বকের উজ্জ্বলতা আনে তা নয়, নানান ধরণের স্কিন প্রবলেম থেকেও ত্বক কে সুরক্ষিত রাখে। এই উদ্ভিদে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট থাকার ফলে প্রাকৃতিক এই উদ্ভিদ দ্বারা বিভিন্ন প্রকার বিউটি প্রডাক্ট তৈরী করা হয়।

আরো পড়ুন- থানকুনি পাতা | আদামনির ঔষধি গুণাগুণ ও এর কার্যক্ষমতা জেনে নিন।

তাছাড়া এই উদ্ভিদে রয়েছে  মেনাস, ল্যাকটিন, পলিস্যাকারাইড ইত্যাদি।  যা ত্বক ঠিক রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। কম খরচে লাভজনক হওয়ার আশায় আমাদের দেশের অনেক কৃষকেরা এ ব্যবসায় ঝুঁকছে। ফলে তারা লাভবান হচ্ছে। এই উদ্ভিদ প্রচুর কার্যকরি হওয়াই  নার্সারী তে সহজেই এ গাছের চারা পাওয়া যায়। বাড়ির আঙ্গিনায় টবে বা ছাদে উপযুক্ত মাটি পেলে সহজেই এ গাছের চারা লাগিয়ে এলোভেরা চাষ করা যেতে পারে।

এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা ও এর উপকারিতা

মুখে এলোভেরা ব্যবহারের নিয়ম – এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা

ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি ও ত্বক ভালো রাখতে এলোভেরার বিকল্প নাই। ভিন্ন ভিন্ন উপায়ে মুখে এলোভেরা ব্যবহার করা যায়। 

এলোভেরা এবং মাটিঃ-

  • বাটি মুলতানি মাটির সাথে পরিমাণ মতো এলোভেরা জেল ও কয়েক ফোটা গোলাপ জল মিশিয়ে পেস্ট আকারে এক প্রকার উপাদান তৈরি হয়। যা মুখে লাগালে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। 

এলোভেরা এবং শসাঃ-

  • পরিমাণ মতো এলোভেরার সাথে ১ চা চামচ শসার রস। দুটি উপাদান একত্রে করলে যে উপাদান  তৈরি হয় সেটি মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেললে মুখের ময়লা দূর করা সম্ভব হয়। 

এলোভেরা এবং  মধুঃ- 

  • এলোভেরার সাথে মধু মিশিয়ে এক ধরনের ফেস মাস্ক তৈরি করা হয়। যা ত্বকের তেল তেলে ভাব কমাতে সহায়তা করে । ফলে ত্বক সুন্দর হয়। 

এলোভেরা লেবুঃ

  • যাদের স্কিন শুকনো তাদের জন্য এই ফেসিয়াল একেবারে উপযুক্ত। আগেই বলেছি এলোভেরায় রয়েছে অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট যা ব্রণ দূর করতে সহায়তা করে।  

এলোভেরা এবং নিমপাতাঃ-

  • পরিমাণ মতো এলোভেরার সাথে কয়েক ফোটা নিম পাতার রস নিয়ে এক প্রকার ফেস ওয়াস তৈরী করা হয়। যা স্কিনের শুস্কতা দূর করতে সহায়তা করে। 

এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা ও এর উপকারিতা ব্যাপক। চলুন জেনে নেওয়া যাক- চুলের যত্নে এলোভেরা কি বিশেষ ভূমিকা পালন করছে:

চুলের যত্নে এলোভেরা – এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা

*চুল পরিস্কার রাখতে শ্যাম্পুর বদলে এলোভেরা হেয়ার প্যাক ব্যবহার করা যেতে পারে। নারিকেল তেল, লেবুর তেল ইত্যাদির সাথে এলোভেরা মিশিয়ে ব্যবহার করা যাবে। এতে চুল সতেজ থাকে।

*আপনার কি চুল পড়ে যাচ্ছে? সমাধান খুঁজছেন? প্রাকৃতিক ভাবে এর সমাধান বের করতে চাইলে এলোভেরা জেল ব্যবহার করুন। এলোভেরা জেল মাথায় দিয়ে ১ ঘন্টা পর শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন তাহলে চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে।

আরো পড়ুন- নিম পাতার উপকারিতা -জেনে নিন এর জাদুকরি গুণাগুণ!

*এলোভেরা জেল, টক দই, কাচা ডিম ইত্যাদির মিশ্রণে চুলের প্যাক তৈরী করতে পারেন। এগুলো নিয়মিত ব্যবহারের ফলে আপনার চুল দ্রুত বৃদ্ধি পেতে শুরু করবে।

*চুলের ময়েশ্চার বাড়াতে এলোভেরার সাথে আর্মন্ড ওয়েল ব্যবহার করা যেতে পারে। 

*চুলের ঝলমলে ভাব আনতে এলোভেরা ব্যবহার করা যেতে পারে। আমরা জানি,  সূর্যের ক্ষতিকর রশ্নি ও ধুলাবালির কারণে আমাদের চুল রুক্ষ হয়ে যায়। ফলে চুল ভেঙ্গে পড়ে। এলোভেরা কন্ডিশনার ব্যবহার করলে এ সমস্যা দূর হতে পারে । খুব সহজে বাসায় বসে এ কন্ডিশনার তৈরি করে ফেলতে পারেন। এজন্য আপনাকে যা করতে হবে তা হলো প্রথমে একটি পাত্রে নিদিষ্ট পরিমাণ এলোভেরা জেল নিন তারপর সে পাত্রে একটি লেবু কেটে রসগুলো এলোভেরার সাথে মেশান মেশানো হয়ে গেলে তিন-চার ফোটা নারিকেল তেল পাত্রে দিন ব্যাস তৈরী হয়ে গেলো এলোভেরা কন্ডিশনার।

এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা ও এর উপকারিতা সম্পর্কে আমরা উপরে আলোচনা করেছি। এবার চলুন জেনে নিই স্বাস্থ্য রক্ষায় এলোভেরা কি বিশেষ ভূমিকা পালন করছে সে সম্পর্কে কিছু জানার। 

দেহ সুস্থ রাখতে এলোভেরাএলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা

*এলোভেরা ঔষধি গুণসম্পন্ন ভেষজ উদ্ভিদ। এলোভেরা রক্তচাপ কমাতে সহায়তা করে। রক্তে কোরেস্টরল হার কমায়। 

*আমরা আগেই জেনেছি  অ্যামিনো- অ্যাসিড সহ বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদান বিদ্যমান রয়েছে এই ভেষজ উদ্ভিদে। 

*এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা এর উপকারিতায় এলোভেরার জুস  মানসিক চাপ, ক্লান্তি, শারীরিক ধকল ইত্যাদি দূর করে মনকে সতেজ ও প্রফুল্ল রাখে।

এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা এর উপকারিতা সম্পর্কে জানা নেই এইরকম মানুষ বহিবির্শ্বে নেই বললেই চলে।

এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা এর উপকারিতা সম্পর্কিত প্রশ্নোত্তর পর্বঃ-

প্রশ্নঃ- এলোভেরার বৈজ্ঞানিক নাম কী?

উত্তরঃ- ইংরেজি ( মেডিসিনাল আলোই, বার্ন প্লান্ট) 

প্রশ্নঃ- এলোভেরার উৎপত্তি কিভাবে?

উত্তরঃ- আজ থেকে ৬০০০ বছর আগে প্রাচীন মিশরে এলোভেরার উৎপত্তি হয়।

প্রশ্নঃ- এলোভেরার কি কি উপকারিতা রয়েছে?

উত্তরঃ- এলোভেরার উপকারিতা অসীম। এলোভেরা ব্যবহারের ফলে আমরা যেসব সুবিধা পেয়ে থাকি তা নিচে নিম্নরুপঃ-

*খাবার হজম করতে সহায়তা করে। 

*চুল পড়া রোধ করে। 

*ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনে। 

*পেট ঠান্ডা রাখতে সহায়তা করে। 

*দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। ইত্যাদি। 

শেষকথাঃ-

পাঠক, আশা করি এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা ও এর উপকারিতা সম্পর্কে আপনারা মোটামুটি একটা ধারণা পেয়েছেন। শরীরে ব্যবহারের পাশাপাশি এই উদ্ভিদটি খাদ্য হিসেবেও গ্রহণ করা যায়। এলোভেরা খেলে পেট খারাপ ও অনিদ্রা জনিত রোগ ভালো হয়। পাশাপাশি শরীরের বেশকিছু উন্নতি সাধিত হয়। অতএব, রূপচর্চা ও শারিরীক সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে এই উদ্ভিদটি হতে পারে আপনার সহায়ক।

আরো পড়ুন-

তুলসী পাতার উপকারিতা এবং এর অবিশ্বাস্য ঔষধি গুণাগুণ!

কালোজিরা তেলের উপকারিতা কি ? এটি খাওয়ার নিয়মাবলী-

কাঁচা হলুদ খাওয়ার উপকারিতা – নিয়ম জেনে নিন!

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *