পাকিস্তানকে হারিয়ে ওয়ার্ল্ডকাপ জিতলো ইংল্যান্ড!
ওয়ার্ল্ডকাপ জিতলো ইংল্যান্ড

পাকিস্তানকে হারিয়ে ওয়ার্ল্ডকাপ জিতলো ইংল্যান্ড!

আইসিসি মেনস টি টুয়েন্টি ওয়ার্ল্ডকাপের ফাইনালে আজ মুখোমুখি হয়েছে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড। এর আগে ‘৯২ সালে ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড। সেসময় জয় পেয়েছিল পাকিস্তান। 

মেলবোর্ন ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে টসে জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেয় ইংল্যান্ড। পাকিস্তানের পক্ষে ওপেনিংয়ে নামে মোহাম্মদ রিজওয়ান ও বাবর আজম। দুজনে মিলে শুরুটা ভালোই করে।

ধীরে সুস্থে দলকে এগিয়ে নিতে থাকে। তবে তাদের জুটি স্থায়ী হতে দেয়নি স্যাম কুরান। পঞ্চম ওভারে ১৫ রানের সংগ্রহ নিয়ে কুরানের বলে বোল্ড আউট হয়ে সাজঘরে ফিরে মোহাম্মদ রিজওয়ান। 

এরপর মাঠে নামে মোহাম্মদ হারিস। তবে তার ইনিংসও লম্বা হয়নি। ১২ বলে ৮ রানের ইনিংস খেলে আদিল রশিদের বলে বেন স্ট্রোকের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে হারিস। এরপর দলকে টানতে শুরু করে বাবর আজম ও শান মাসুদ।

দুজনে মিলে দলকে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে যায়। তবে আদিল তাদের জুটিকেও দীর্ঘ স্থায়ী হতে বাধা দেয়। ১২তম ওভারে এসে প্রথম বলেই বাবর আজমের উইকেট তুলে নেয় আদিল রশিদ। 

এরপর ইফতিখার আহমেদ নেমে শূন্য রানে আউট হলে দলের দায়িত্ব কাঁধে তিলে নেয় শান মাসুদ ও সাদাব খান। তাদের জুটি ভাঙেন স্যাম কুরান। ২৮ বলে ৩৮ রানের ইনিংস খেলে লিয়ামের হাতে ক্যাচ তুলে দেয় শান মাসুদ।

মাসুদ আউট হওয়ার পরের ওভারেই সাদাব খানও আউট হয়। ১৪ বলে ২০ রানের সংগ্রহ নিয়ে ক্রিস জর্ডানের বলে আউট হয় সাদাব খান। তখন পাকিস্তানের সংগ্রহ ১২৩ রানে ৬ উইকেট। 

এরপর আর কেউ ক্রিজে দাড়াতে পারেনি। পরপর চারটি উইকেট হারায় পাকিস্তান। এতে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৩৭ রান। ইংল্যান্ডের পক্ষে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট শিকার করে স্যাম কুরান। দুটি করে উইকেট পায় আদিল রশিদ ও ক্রিস জর্ডান।

১৩৮ রানের টার্গেট নিয়ে ওপেনিংয়ে মাঠে নামে জস বাটলার ও এলেক্স হেলস। পাকিস্তানের পক্ষে প্রথম ওভারে বোলিংয়ে আসে শাহীন আফ্রিদি। প্রথম ওভারেই পাকিস্তানকে সাফল্য এনে দেয় আফ্রিদি।

শেষ বলে এলেক্স হেলসকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরালে প্রথম উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। এরপর মাঠে নামে ফিলিপ সল্ট। ফিলিপও দ্রুতই ফিরে যায় সাজঘরে। হারিস রউফের বলে ইফতিখার আহমেদের হাত বন্দি হয়ে ৯ বলে ১০ রানের সংগ্রহ নিয়ে ফিরে সল্ট।

জস বাটলার আশার আলো দেখালেও, তারও ইনিংস শেষ করে হারিস রউফ। ৬ষ্ট ওভারে ব্যাটের কোনায় বল লেগে রিজওয়ানের হাতে গিয়ে বন্দি হয়। এতে ১৭ বলে ২৬ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলে বিদায় নেয় জস বাটলার।

এরপর রানের গতি খুবই ধীর হয়ে যায়। পাকিস্তানও আর উইকেট পাচ্ছিলো না। অবশেষে ১৩তম ওভারে উইকেটের দেখা পায় সাদাব খান। ২৩ বলে ২০ রান করে সাজঘরে ফিরে হ্যারি ব্রুক। এরপর আাবরও ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে ইংল্যান্ড।

বেন স্টোকস ও মঈন আলীর ঝড়ো ব্যাটিংয়ে আবারও দ্রুত এগোতে থাকে ইংল্যান্ড। তাদের থামাতে ব্যর্থ হয় পাকিস্তানের বোলাররা। জয়ের আগমুহূর্তে ১৩ বলে ১৯ রানের সংগ্রহ দিয়ে সাজঘরে ফিরে মঈন। তখন দলীয় সংগ্রহ ছিল ১৩২ রান। তারপর শীঘ্রই দলকে জয় এনে দেয় স্টোকস। 

স্টোকসের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৬ বল বাকি থাকতেই ৫ উইকেটে জয় পায় ইংল্যান্ড। ৪৯ বলে ৫২ রান করে অপরাজিত ছিল বেন স্টোকস। পাকিস্তানের পক্ষে সর্বোচ্চ দুটি উইকেট শিকার করে হারিস রউফ। 

এই জয়ের মাধ্যমে আইসিসি টি টুয়েন্টি ওয়ার্ল্ডকাপ ২০২২ এর শিরোপা হাতে নেয় ইংল্যান্ড। এই ম্যাচে ম্যান অব দ্য ম্যাচ এবং একই সাথে প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্ট হয়েছে স্যাম কুরান। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর 

পাকিস্তান – ১৩৭/৮ (২০) 

শান মাসুদ ৩৮

বাবর আজম ৩২

সাদাব খান ২০

স্যাম কুরান ৩/১২

আদিল রশিদ ২/২২

ক্রিস জর্ডান ২/২৭

ইংল্যান্ড – ১৩৮/৫ (১৯)

বেন স্টোকস ৫২

জস বাটলার ২৬

হ্যারি ব্রুক ২০

হারিস রউফ ২/২৩

শাহীন আফ্রিদি ১/১৩

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top
Scroll to Top