কৃমি দূর করার উপায়

কৃমি দূর করার উপায় সমূহ বিস্তারিত জেনে নিন!

কৃমি দূর করার উপায় – কৃমির সমস্যায় প্রায় কমবেশি অনেকেই ভুগে  থাকি। এই জীবটি কমবেশি সকলের দেহেই বাস করে। কৃমি দূর করার উপায় শুধু ঔষধ নয়, কিছু ঘরোয়া উপায়েও কৃমি হতে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। 

চলুন তাহলে জেনে নিই, কৃমি হওয়ার কারণ ও তার প্রতিকার।

কৃমির কারণ এবং লক্ষণ

কৃমি হলো এক ধরনের পরজীবী প্রাণী, যা মানুষ এবং প্রাণীর দেহে বসবাস করে। সেখান থেকেই এরা খাদ্য গ্রহণ করে বংশ বিস্তার করে থাকে। 

মূলত নোংরা পরিবেশ, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভাস, খালি পায়ে চলাফেরা, দূষিত  পানি পান করা ইত্যাদি কৃমি সংক্রমণের মূল কারণ। 

কৃমি হলে কিছু কিছু উপসর্গ দেখা দেয়। যেমন- খাবারে অরুচি, বমি বমি ভাব, পেট ব্যথা, পেট মোটা বা ভারি হওয়া, মুখে থুথু ওঠা, পায়খানার দ্বারে চুলকানি ইত্যাদি। 

এছাড়াও অবসাদে ভোগা, অস্থিরতা, মিষ্টি জাতীয় খাবারের প্রতি আসক্ত, রক্তসল্পতা, শরীরে র‍্যাস, চুলকানি, মাড়ি থেকে রক্ত বের হওয়া ইত্যাদি লক্ষণ গুলি প্রকাশ পায়। তাই কৃমি হলে তা মোটেই হেলা করা যাবে না। 

কৃমি দূর করার উপায়

গবেষণায় দেখা গেছে, শতকরা ৮০ ভাগ মানুষের পেটে কৃমি বসবাস করে। এটাকে সাধারণ সমস্যা ভেবে অবহেলা করলে মারাত্মক ভুল হতে পারে। কারণ কৃমি বৃদ্ধি পেলে শরীরে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। বেশ কিছু ঘরোয়া উপায় আছে যা কৃমি দূর করার উপায় হিসেবে কার্যকর। 

রসুন:

রসুনে আছে এ্যান্টি-প্যারাসাইটিক উপাদান যা কৃমি দূর করতে সাহায্য করে। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে  দুই কোয়া রসুন খান। কাঁচা রসুনের এ্যামাইনো এসিড কৃমি মারতে সাহায্যে করে। 

গাজর:

গাজরে আছে ভিটামিন-এ, ভিটামিন সি, বিটাক্যারোটিন এবং জিংক যা কৃমি প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে একটি গাজর খেলে কৃমির সমস্যা দূর হয়।

আনারস:

গবেষণায় দেখা গেছে, একটানা তিন থেকে চার দিন আনারস খেলে কৃমি সম্পূর্ণরূপে বিলীন হয়। আনারসে বিদ্যমান ব্রোমোলিন এনজাইম কৃমি মেরে ফেলতে সাহায্যে করে। 

>> কৃমির ট্যাবলেট খাওয়ার নিয়ম জেনে নিন!

হলুদ:

কৃমি দূর করতে হলুদ একটি কার্যকরী উপাদান। এক চা চামচ কাঁচা হলুদের রসের সঙ্গে সামান্য একটু লবন মিশিয়ে খান কৃমি হতে মুক্তি পাবেন। 

শশার বীজ:

কৃমি দূর করতে শশার বীজ অত্যন্ত কার্যকরী উপাদান। শশার বীজ শুকিয়ে গুড়ো করে প্রতিদিন ১চা চামচ করে খেতে হবে। 

মিষ্টি কুমড়োর বীজ: 

কৃমির সমস্যা দ্রুত সমাধান করতে মিষ্টি কুমড়োর বীজ দারুণ কার্যকরী। কৃমি দূর করার উপায় গুলোর মধ্যে মিষ্টি কুমড়োর বীজ একটি অন্যতম উপায়। ৩ কাপ পানি দিয়ে  মিষ্টি কুমড়োর বীজ আধা ঘণ্টা সিদ্ধ করুন। সিদ্ধ করা পানি প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ১ সপ্তাহ খান। কৃমির সমস্যা দূর হয়ে যাবে। 

উপসংহার

উপরে উল্লেখিত কৃমি দূর করার উপায় গুলি আধুনিক চিকিৎসা শাস্ত্রে পরীক্ষিত নয়। তবে এই ঘরোয়া উপায় গুলি দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে যা আপনার কৃমি সমস্যা  দূর করবে সাময়িক ভাবে । 

কৃমি থেকে মুক্তি পেতে হলে খাদ্যাভাসে পরিবর্তন ও নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। প্রয়োজনে ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া বাঞ্ছনীয়।

শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top