গোল মরিচ খাওয়ার ৮ টি উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ জেনে নিন!

গোল মরিচ খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানি না। গোল মরিচ বিশ্বব্যাপী সর্বাধিক ব্যবহৃত মশলা। ‘মশলার রাজা’ হিসাবে খ্যাত, এই গোল মরিচ সারা বিশ্ব জুড়ে প্রচুর পরিমাণে রান্নায় ব্যবহারিত হয়ে থাকে। 

প্রাচীন কাল থেকেই গোল মরিচকে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য সুবিধা হিসাবে বিবেচনা করা হয়। তাই খাবারে স্বাদ যোগ করার পাশাপাশি এটি তে রয়েছে বিস্তৃত উপকারী বৈশিষ্ট্য। 

গোল মরিচ খাওয়ার উপকারিতা অনেক। এটি ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করে, অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট, কাশি এবং সর্দি থেকে মুক্তি দেয়, ত্বকের সমস্যাগুলি নিরাময় করে, ওজন কমানোর প্রচেষ্টা বৃদ্ধি করে।

গোল মরিচের পুষ্টিগুণঃ

প্রতি ১০০ গ্রাম গোল মরিচে প্রায় ৩০৪ ক্যালোরি থাকে। এটি একটি ‘সুপারফুড’ বলতে পারি কারণ এটি তে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টির সমৃদ্ধ উত্স রয়েছে। নীচে গোল মরিচের পুষ্টিকর তথ্যগুলির বিশদ বিবরণ দেওয়া হল।

মোট ক্যালোরি – ৩০৪

  • প্রোটিন – ১১.৫ গ্রাম
  • মোট কার্বোহাইড্রেট – ৪৯.২ গ্রাম
  • ডায়েটি ফাইবার – ৩৫.৩ গ্রাম
  • মোট ফ্যাট – ৬.৮ গ্রাম
  • ক্যালসিয়াম – ৪৬০ মিলিগ্রাম
  • আয়রন – ১২.৪ মিলিগ্রাম
  • ম্যাগনেসিয়াম – ১৭১ মিলিগ্রাম
  • ফসফরাস – ১৯৮ মিলিগ্রাম
  • পটাসিয়াম – ১.৪ গ্রাম
  • সোডিয়াম – ২০  মিলিগ্রাম
  • দস্তা – ১.৩১ মিলিগ্রাম
  • কপার – ১.৪ মিলিগ্রাম
  • ম্যাঙ্গানিজ – ৪.১৪ মিলিগ্রাম
গোল মরিচ খাওয়ার উপকারিতা

গোল মরিচ খাওয়ার উপকারিতা –

আমরা অনেকেই গোল মরিচের উপকারিতা সম্পর্কে জানি না। এটি স্বাস্থ্যসম্মত একটি মশলা যার অনেকগুলো গুণাগুণ রয়েছে। তাহলে চলুন জেনে নি গোল মরিচ খাওয়ার উপকারিতা সমূহঃ

১# সর্দি কাশি দূর করেঃ

সর্দি এবং কাশি অন্যতম সাধারণ একটি সমস্যা যা আমাদের সকলকে প্রভাবিত করে। গোল মরিচ আয়ুর্বেদিক ওষুধগুলির একটি প্রধান উপাদান যা এই সমস্যাগুলির নিরাময়ের জন্য দীর্ঘকাল ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। কালো মরিচ  চা, বা হালকা গরম পানির সঙ্গে হলুদ যোগ করে খেতে পারেন। সর্দি, কাশি সম্পর্কিত পুরানো আয়ুর্বেদ প্রতিকার হলো – কালো মরিচ, এক চিমটি হলুদ, ২-৩ ফোঁটা মধু – ভাল করে মিশিয়ে নিন এবং হালকা গরম পানি দিয়ে খান।

#২ স্মৃতিশক্তি উন্নত করেঃ

গোল মরিচ আমাদের মস্তিষ্কে একটি উত্তেজক প্রভাব ফেলে। এটি বিশেষত নিউরোডিজেনারেটিভ রোগে আক্রান্ত রোগীদের সহায়তা করে। গোল মরিচ মস্তিষ্কের রাসায়নিক পথগুলিকে উত্তেজিত করে স্বতন্ত্রের স্মৃতি এবং জ্ঞানীয় কার্যকে উন্নত করে।

#৩ রক্তে শর্করার নিয়ন্ত্রণ করেঃ

টাইপ ২ ডায়াবেটিস রোগীদের চিনি স্তর নিয়ন্ত্রণে গোল মরিচ কার্যকর ভুমিকা পালন করে। গোল মরিচ খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে পুষ্টিবিদরা প্রায়শই দাবি করেন যে আপনার ডায়েটে গোল মরিচ যুক্ত করলে উচ্চ রক্তে শর্করার ঝুঁকি হ্রাস করতে সহায়তা করে।

গোল মরিচের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যগুলি রক্তে শর্করাকে স্থিতিশীল করতে সাহায্য করে। পাশাপাশি হজম স্বাস্থ্যকে বাড়িয়ে তোলে। এগুলি ছাড়াও গোল মরিচ স্থূলত্বের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করে যা ডায়াবেটিসের অন্যতম প্রধান কারন।

#৪ কোলেস্টেরলের স্তরকে কম করতে সহায়তা করেঃ

গবেষণায় গোল মরিচ খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, গোল মরিচ রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে আনতে পারে। গোল মরিচ পাইপারাইন কোলেস্টেরল গ্রহণের পরিমাণ হ্রাস করতে সহায়তা করে, ‘খারাপ’ কোলেস্টেরল (এলডিএল-লো-ঘনত্বের লাইপোপ্রোটিন) এর মাত্রা হ্রাস করে। একই সাথে ‘ভাল’ কোলেস্টেরলের (এইচডিএল-উচ্চ-ঘনত্বের লাইপো প্রোটিন) মাত্রা বাড়িয়ে তোলে।

#৫ ওজন কমাতে সহায়তা করেঃ

ওজন হ্রাস করার একটি দুর্দান্ত উপায় হ’ল আপনার ডায়েটে কিছুটা গোলমরিচ যুক্ত করা। আপনি এগুলি আপনার খাবারে যুক্ত করতে পারেন। এতে আপনি অবশ্যই দুর্দান্ত ফলাফল পাবেন। ওজন হ্রাস করার জন্য গোল মরিচ ব্যবহার করার সর্বোত্তম উপায় হ’ল এটিকে হালকা গরম পানিতে যুক্ত করে সকালে পান করা। স্বাদ বাড়াতে চাইলে আপনি এটিতে মধু যোগ করতে পারেন। নিশ্চিত করুন যে আপনি আধ চামচ এর বেশি গোল মরিচ যোগ করছেন না। আরো জানুনঃ পেট কমানোর সহজ ব্যায়াম । মেদ কমবে দ্রুত গতিতে!

#৬ দাঁতের স্বাস্থ্যের উন্নতি করেঃ

গোল মরিচ বিভিন্ন ধরণের টুথপেস্ট এবং অন্যান্য পণ্যগুলিতেও ব্যবহৃত হয়ে থাকে।এটি আপনার দাঁত কে শক্তিশালী করবে এবং দাঁতে দুর্গন্ধযুক্ত সমস্যাটি দূর হবে। আপনার যদি দাঁতের ক্ষয় হয় এবং দাঁতে ব্যথা থেকে দ্রুত ত্রাণ পেতে চান তবে আমরা অবশ্যই আপনাকে প্রতিদিন গোল মরিচ ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছি। আপনি অবশ্যই সময়ের সাথে দুর্দান্ত ফলাফল পাবেন। আরো পড়ুনঃ দাঁতের মাড়ি ব্যথা কমানোর উপায় – ঘরোয়া সমাধান!

#৭ রক্তচাপ হ্রাস করে:

আপনি যদি উচ্চ রক্তচাপের রোগী হন তবে আপনার গোল মরিচ খাওয়ার উপকারিতা বেশ ভালভাবে কাজে দিবে। পিপারিন নামক একটি যৌগ, উপস্থিত রক্তচাপের স্তর উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস করতে প্রমাণিত হয়। আপনার ওষুধের সাথে মাঝারি পরিমাণে গোল মরিচ সেবন করা আপনার হৃদপিণ্ডকে হাই বিপি থেকে রক্ষা করতে পারে, যা এটির অন্যতম প্রধান সুবিধা। আরো জানুনঃ হাই প্রেসার কমানোর উপায় কি ? জেনে নিন ৭টি ঘরোয়া সমাধান-

#৮টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বাড়াতে সহায়তা করেঃ

গবেষণায় দেখা যায় যে গোল মরিচ দেহে টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বাড়িয়ে তুলতে পারে যা পুরুষদের যৌন হরমোন। এটি পুরুষদের শুক্রাণুর মানও উন্নত করে এবং এর ঘনত্ব বাড়ায়। পুরুষদের যৌন কর্মক্ষমতা উন্নত করার জন্য গোল মরিচ ব্যবহার করার পরামর্শ দেওয়া হয়। আরো পড়ুনঃ টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির উপায় | খাবার,ব্যয়াম, চিকিৎসা এবং ঔষধ সহ বিস্তারিত জানুন।

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *