চিনা বাদামের ১৫টি উপকারিতা

চিনা বাদামের ১৫টি উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ জানুন!

চিনা বাদামের উপকারিতা – চিনাবাদাম প্রায় সকলেরই প্রিয় একটি খাবার। ব্যস্ততার ফাঁকে এটি খেতেও অসাধারণ। চিনাবাদামের উপকারিতাও আছে বেশ। নানান পুষ্টিগুণে ভরপুর এই খাবারের উপকারিতা জানলে অবাক হবেন আপনিও। 

তাহলে চলুন জেনে নি চিনা বাদামের উপকারিতা ও এর নানান কার্যকরি দিকসমূহ। 

চিনা বাদামের উপকারিতা 

চিনাবাদাম অনেকেই স্ন্যাকস হিসেবে রাখেন। এটি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্যে বেশ উপকারি। নানান প্রোটিন এবং পুষ্টিউপাদানে ভর্তি এই খাবার খেলে আমাদের কী কী উপকার হবে তা নীচে তুলে ধরা হলো। 

হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় 

বিভিন্ন গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে নিয়মিত চিনাবাদাম খেলে হৃদরোগের ঝুঁকি ৮০ শতাংশ কমে যায়। এতে এমন কিছু পুষ্টি উপাদান রয়েছে যা হার্টের স্বাস্থ্য ভালো রাখে ও হার্ট এট্যাকের ঝুঁকি কমায়। তাই প্রতিদিন চিনাবাদামে খেলে এর ফাইবার ও প্রোটিন হার্টের কার্যক্ষমতা বাড়ায় ও হার্ট ভালো রাখে।   

ক্যান্সার প্রতিরোধে চিনাবাদাম 

চিনাবাদাম ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে। এতে বিদ্যমান প্রোটিন, ভিটামিন এবং অন্যান্য খনিজ পদার্থ উপস্থিত থাকায় ক্যান্সারের ঝুঁকি হ্রাস পায়।

দেহের বিকাশ 

চিনাবাদাম দেহের বিকাশ সাধন করে। এটি উচ্চ প্রোটিন সমৃদ্ধ একটি খাবার। চিনাবাদামে থাকা এ্যামাইনো এসিড তাই শরীরের উন্নয়ন এবং দেহের বিকাশের জন্য উপকারী। 

দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করে 

চোখের স্বাস্থ্য বজায় রাখতে সবুজ শাক সবজির পাশাপাশি চিনাবাদাম হলো সর্বোত্তম খাদ্য। চিনাবাদামে থাকা ভিটামিন এ এবং ভিটামিন ই উভয়ই অত্যন্ত জরুরী চোখের জ্যোতি বৃদ্ধিতে অত্যন্ত জরুরি। 

ভিটামিন এ চোখের দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করে এবং ভিটামিন ই চোখের ম্যাকুলার অবক্ষয় এবং চোখের ছানি গঠনে বাধা দেয়। 

ওজন কমায়

চিনাবাদাম ওজন কমাতে সাহায্য করে। কারণ এতে উপস্থিত প্রোটিন ও ফাইবার ক্ষুধার অনুভূতি কমিয়ে দেয়। 

যদিও চিনাবাদাম উচ্চ ক্যালরি বিশিষ্ট তথাপি এর মধ্যে এমন কিছু চর্বি বিদ্যমান থাকে যা হজম  হয় না বরং শরীরে শোষণ না হয়ে বেরিয়ে যায়। তাই প্রতিদিেনর খাদ্য তালিকায় চিনাবাদাম রাখতে পারেন।  

হাড় মজবুত রাখে 

বয়সের সাথে সাথে আমাদের দেহের হাড় দূর্বল হতে থাকে। নিয়মিত চিনাবাদাম খেলে হাড় শক্তিশালী এবং মজবুত হয়ে ওঠে। চিনাবাদামে উপস্থিত ম্যাঙ্গানিজ, ফসফরাস এবং অন্যান্য পুষ্টিউপাদান হাড়ের ক্ষয়রোধ করে হাড়কে মজবুত করে তোলে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে 

পুষ্টির অভাবজনিত কারণে আমাদের দেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। ফলে আমরা নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকি। চিনাবাদামে উপস্থিত এন্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং সহজেই রোগাক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা কমিয়ে দেয়।

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে 

চিনাবাদামে এমন কিছু উপাদান আছে যা রক্তে খারাপ কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। তাই নিয়মিত বাদাম খেলে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। 

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে

চিনাবাদাম ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। এটি রক্তে সুক্রোজের মাত্রাও কমায়। প্রতিদিন সকালে নাস্তার সাথে অথবা রাতে শোবার আগে ১০ থেকে ১৫ টি বাদাম পানিতে ভিজিয়ে রেখে সকালে খেলে ডায়াবেটিস অনেকাংশে নিয়ন্ত্রণে থাকে। 

চুলের পুষ্টি জোগায় 

স্বাস্থ্যউজ্জ্বল চুলের জন্য যে সমস্ত প্রোটিনের প্রয়োজন তার সমস্তটাই রয়েছে চিনাবাদামে। এতে আছে উচ্চ মাত্রায় ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড যা চুলে পুষ্টি জুগিয়ে চুল শক্তিশালী করার পাশাপাশি চুলের বৃদ্ধি ঘটায়। 

ত্বক সুস্থ রাখতে 

চিনাবাদাম স্বাস্থ্যের পাশাপাশি ত্বক কে  সুস্থ রাখতেও সাহায্য করে। এতে থাকা নিয়াসিন, ভিটামিন বি৩ এবং এন্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান ত্বকের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে ত্বক কে সুস্থ ও সুন্দর করে তোলে। 

চিনা বাদামের নানান পুষ্টিগুণ

পুষ্টিগুনের ক্ষেত্রেও চিনাবাদামের বিকল্প নেই। গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতিদিন চিনাবাদাম খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুললে শরীরে এমন কিছু উপাদানের প্রবেশ ঘটে যা শরীরকে চাঙ্গা করে তোলে এবং নানা রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে।

এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই, সি, বি৩, ক্যালসিয়াম, নিয়াসিন, সেলেনিয়াম, ফাইবার, প্রোটিন, পটাসিয়াম, এন্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যামাইনো এসিড, ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড সহ আরও অনেক পুষ্টি উপাদান। 

এছাড়াও এতে থাকা এন্টিঅক্সিডেন্ট ক্যান্সার রোগ প্রতিরোধ করার পাশাপাশি শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি সাধন করে এবং তারুণ্য ধরে রাখতেও সাহায্য করে। 

শেষ কথা 

আকারে ছোট হলেও চিনা বাদামের উপকারিতা এবং এর পুষ্টি গুনাগুন অতুলনীয়। এর ভিটামিন ও বিভিন্ন ধরনের খনিজ পদার্থগুলো আমাদের দেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং আমাদেরকে নানা রোগ হতে মুক্তি দেয়। তাই চিনাবাদামের উপকারিতার কথা ভেবে প্রতিদিন এটি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। 

শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top