তালমাখনার উপকারিতা 

তালমাখনা খাওয়ার উপকারিতা ও ভেষজ গুনাগুন জেনে নিন!

crickex banner ad

তালমাখনা একটি উপকারী ভেষজ উদ্ভিদ যার পাতা, শিকড় ও বীজ নানা রোগ প্রতিরোধে অত্যন্ত কার্যকর। তালমাখনা কি, তালমাখনার উপকারিতা ও ব্যবহার এবং এর গুনাগুন সম্পর্কে জানতে পুরো আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন।   

তালমাখনা খাওয়ার উপকারিতা 

মূলত তালমাখনা একটি উৎকৃষ্ট ওষুধিগুন সম্পূর্ণ ভেষজ উদ্ভিদ। এর পাতা, শিকড়, বীজ সবটাই ওষুধের কাজে ব্যবহার করা হয়। অ্যালকাডএডস, ফাইটোস্টেরোল, লিপেস, এনজাইম, ডাইয়াসটেস ইত্যাদি রাসায়নিক উপাদানে ভরপুর তালমাখনা। চলুন  তালমাখনার উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক । 

চলুন জেনে নিই তালমাখনার উপকারিতা

১. লিউকোমিয়া ও শুক্রমেহ

এক্ষেত্রে ৩ গ্রাম তালমাখনা বীজ চূর্ণের সাথে ১ গ্রাম তেঁতুলের বীজ চূর্ণ দুধের সঙ্গে মিশিয়ে ২ বার সেবন করুন। 

২. যৌন ও স্নায়ুবিক দুর্বলতায় ব্যবহার

তালমাখনা বীজ চূর্ণ ৩ গ্রাম, ১ গ্রাম পরিমাণ অশ্বগন্ধা ও ৩ চা চামচ মধু একত্রে মিশিয়ে প্রতিদিন ২ বার সেবন করুন। 

৩. দেহের পুষ্টি সাধন ও দুর্বলতায়

৩ গ্রাম তালমাখনা বীজের চূর্ণের সাথে ১ গ্রাম শতমূলী চূর্ণ দুধের সঙ্গে মিশিয়ে প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এবং রাতে শোয়ার পূর্বে সেবন করুন। 

৪. বাত ও সন্ধির ব্যথায় তালমাখনা

বাত ও সন্ধির ব্যথায় তালমাখনা পাতার প্রলেপ দিলে ব্যথা উপশমে কার্যকর ভুমিকা পালন করে। এছাড়াও ১ থেকে ৩ গ্রাম তালমাখনার বীজ চূর্ণ এক গ্লাস কুসুম গরম পানির সঙ্গে মিশিয়ে প্রতি দিন রাতে খাবার পর সেবন করুন। 

৫. ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য 

ডায়াবেটিস রোগ ছাড়াও অন্য কারণে যদি যৌন দুর্বলতা আসে, সেক্ষেত্রে তালমাখনা দিয়ে তৈরি ওষুধ সেবনে তা খুব সহজেই দূর করা যায়। 

৬. লিভার ও কিডনির প্রতিবন্ধকতা দূর করতে 

তালমাখনার পাতা ও শাখার জোসান্দা লিভার ও কিডনির প্রতিবন্ধকতা দূর করতে যথেষ্ট কার্যকর। 

৭. যৌবন শক্তি বৃদ্ধি করতে 

যৌবন ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে তালমাখনা অত্যন্ত৷ উপকারী। পরিমাণ মতো তালমাখনা বীজ এক গ্লাস দুধের সাথে মিশিয়ে প্রতিদিন পান করুণ। এতে আপনার বল বৃদ্ধি, যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধি এবং যৌন উদ্দীপনা ইত্যাদি উপকার হবে। 

 ৮. যৌন সমস্যা দূর করতে 

যৌন সমস্যা দূর করতে ৫ থেকে ৭ গ্রাম তালমাখনার সাথে সমপরিমাণ তালমিছরি ও এক গ্লাস দুধ একত্রে মিশিয়ে দৈনিক একবার করে পান করুণ। 

৯. কোষ্ঠ্য পরিষ্কারক ও হজমকারক হিসেবে 

তালমাখনার বীজ হজমকারক ও কোষ্ঠ পরিস্কারক হিসেবে বেশ কার্যকর। এছাড়াও বায়ুঃনিসারক এবং পাকস্থলীর ব্যথা নিবারক হিসেবেও তালমাখনা অত্যন্ত উপকারী। 

১০. ত্বকের সমস্যায়

ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা যেমন ত্বকের মলিনতা,  ব্রনের দাগ, বলিরেখা, বয়সের ছাপ ইত্যাদি দূর করতে তালমাখনা বীজের তেল ব্যবহার করতে পারেন। 

১১. বলকারক হিসেবে 

তালমাখনা বলকারক হিসেবে বেশ কার্যকর। যাদের শারীরিক দুর্বলতা বা অক্ষমা রয়েছে, তালমাখনা খাওয়ার মাধ্যমে এই দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে পারেন। 

তালমাখনা কি?

প্রথমত বলা যায় তালমাখনা একটি ভেষজ ঔষধ। এটি একটি লতাগুল্ম জাতীয় বর্ষজীবী উদ্ভিদ। উদ্ভিদটির ইউনানি নাম হলো তালমাখনা। গাছ অনেক লম্বা প্রায় ৫০ সে.মি পর্যন্ত উঁচু হয়। বেশির ভাগ গাছ ৩০ সে.মি হয়ে থাকে। সাধারনত এ গাছ জলাভূমির ধারে জন্মে থাকে। গাছের পাতা হালকা তামাটে সবুজ রঙের। কাঁটা আর পাতা উভয়ই ওপরের দিকে খাড়া হয়ে থাকে।

এ গাছ বহু শাখা প্রশাখা বিশিষ্ট। ফুলগুলো ফোটে গাছের গিট থেকে। ফুলগুলো সাদা বেগুনি রঙের আর বীজ গুলো ছোট গোল আকৃতির হয়ে থাকে। দেখতে অনেকটা তিলের মত। এ বীজ গুলো পানিতে ভিজিয়ে রাখলে লোদ বের হয়। লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা নিয়ে ১৭ টিপস!

তালমাখনার গুনাগুণ 

তালমাখনার বীজ উপকারিতার দিক থেকে সবচেয়ে কার্যকর। এর রয়েছে অনেক ঔষধি গুনাগুন। এর বীজে রয়েছে উপকারী সব রাসায়নিক উপাদান যা নানা ধরনের রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে থাকে। 

মূলত তালমাখনা বীজের রস প্রস্রাববর্ধক এবং মুত্রনালীর নানা রকম সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে। এর বীজ মুত্রনালীর পাথর দূর করতেও সাহায্য করে। 

এছাড়াও বাত ও সন্ধির ব্যথা উপশমে তালমাখনা বীজের তেল বেশ কার্যকরী। এ বীজের তেল রান্নাতে বিশেষ করে ফুচকায় ব্যবহার করা হয়। 

তালমাখনার বীজ ফাইবার সমৃদ্ধ। তাই হজম ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সহায়ক। এর বীজ লো ফ্যাটযুক্ত ফলে ডায়াবেটিস রোগীদের জন্যও উপকারী। দুর্বলতা, হার্টের সমস্যা, পিত্তথলির পাথর, মানসিক অবসাদ, যৌন সমস্যা সমাধানে তালমাখনা আশীর্বাদ স্বরুপ। 

এছাড়াও তালমাখনার বীজ হজমকারক, বায়ুঃনিসারক এবং পাকস্থলীর ব্যথা নিবারক হিসেবে অত্যন্ত কার্যকর। এটি দেহ ও মনে প্রফুল্লতা আনয়ন করে দেহে পুষ্টি ও বল বৃদ্ধি করে।

এ গাছের পাতা, শিকড় ও বীজ গনোরিয়া, বাত ব্যথা, জন্ডিস এবং মূত্রাশয়ের প্রদাহ সারতে ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও গ্যাসট্রিকের সমস্যা দূর করতে তালমাখনা বেশ উপকারী। 

তালমাখনা খাওয়ার নিয়ম 

মূলত তালমাখনা একটি উপকারী ভেষজ ঔষধ। এটি খাওয়ার সঠিক নিয়ম আমরা অনেকেই জানি না। তাই আপনাকে জানতে হবে তালমাখনা খাওয়ার সঠিক নিয়ম। কারণ সঠিক নিয়মে খেলে আপনি এর উপকারগুলো পাবেন। 

তালমাখনা ১৫ থেকে ২০ মিনিট ভিজিয়ে রাখতে হবে। ভিজিয়ে রাখা বীজ যখন ফুলে উঠবে তখন সেটি খেতে হবে। তালমাখনা সকালে খালি পেটে অথবা রাতে খাওয়ার আগে বা পরে খেতে পারেন। তালমাখনার সঙ্গে দুধ বা মধু মিশিয়েও খাওয়া যায়। তালমাখনার বীজ ছাড়াও এর পাউডার খেতে পারেন। 

তবে সঠিক নিয়মে পরিমাণ মতো খেতে হবে। পরিমাণের অতিরিক্ত খেলে পেটে গ্যাসের সমস্যা হতে পারে। তালমাখনা বাইনাতির দোকানে পাবেন, বিশেষ করে যে দোকানে আয়ুর্বেদিক গাছ গাছরা কিনতে পাওয়া যায়। আমলকির ১২টি উপকারিতা ও খাওয়ার নিয়ম জেনে নিন!

পরিশেষ

পরিশেষে বলা যায়, তালমাখনা কি, তালমাখনার উপকারিতা এবং এর ব্যবহার ও গুনাগুন সম্পর্কে আমরা জানতে পারলাম যা আপনাদের নানা ধরনের রোগ হতে মুক্তি দিতে এবং সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে সাহায্য করবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top