নিম পাতা মুখে দিলে কি হয় – নিমপাতা দিয়ে ব্রণ দূর করার উপায় জেনে নিন!

নিম পাতা মুখে দিলে কি হয় – কর্মমুখর ব্যস্ত জীবনে মুখের সৌন্দর্যকে আকর্ষণীয় করতে আমরা প্রতিনিয়ত হাত বাড়াচ্ছি বাজারে রকমারি কসমেটিকসের দিকে। কিন্তু বাজারের বেশিরভাগ পন্যে রয়েছে এমন কিছু ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান যা ব্যবহারে ত্বকের সৌন্দর্য খুব দ্রুত সময়ে হারিয়ে যেতে পারে।

ভিডিও টি দেখুনঃ

মুখের ত্বক ভেতর সুন্দর রাখতে প্রাকৃতিক উপাদানের কোন বিকল্প নেই। আর রূপচর্চায় ব্যবহৃত আদি উপাদানের মধ্যে সবচেয়ে সহজলভ্য এবং সবচেয়ে কার্যকরী হলো নিমপাতা। খুব কম সময় ব্যয় করে নিয়মিত আপনার মুখের যত্ন নিতে নিমপাতাই হতে পারে আপনার বেস্ট চয়েস। কিন্তু মুখে নিমপাতার কার্যকরীতা আসলে কতটা বিশদ তা হয়তো অনেকেই জানেন না। তাই মুখে নিমপাতা দিলে কি হয় তা নিয়েই আজ আমাদের ছোট্ট আয়োজন। 

নিম পাতা মুখে দিলে কি হয়

প্রাচীনকাল থেকে রূপচর্চায় নিমপাতা অতুলনীয়। পূর্বে নিম সর্বরোগের ঔষধ হিসেবে জনপ্রিয় ছিল। এখনো বিভিন্ন ঔষধ এবং প্রসাধনীতে নিমপাতার ব্যাপক ব্যবহার রয়েছে। তাই প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে  যেকোনো রূপ সমস্যা সমাধানের কথা আসলেই সবার আগে আসে বহুগুণেসমৃদ্ধ নিমপাতা।

ত্বকের সুরক্ষা নিশ্চিত করেঃ 

ত্বকের সুরক্ষায় নিমপাতার জুড়ি মেলা ভার। নিমপাতা ফাঙ্গাস এবং ব্যাকটেরিয়া বিরোধী হওয়ায় ত্বকের সংক্রমণ থেকে ত্বককে রক্ষা করে। নিয়মিত মুখে নিমপাতা ব্যবহার করলে ব্রণ, ফুষ্কুরিসহ ত্বকের সংক্রমণজনিত যাবতীয় সমস্যা থেকে মুক্তি মেলে। কাজেই মুখ থাকে দাগহীন ও সুন্দর। 

ত্বক উজ্জ্বল করেঃ 

বাটা নিমপাতার সাথে অল্প পরিমান হলুদ গুড়া মিশিয়ে নিয়মিত মুখে লাগালে মুখের রঙ উজ্জ্বল করে। এছাড়াও, মুখের রোদে পোড়া কালো দাগ দূর করতে নিমপাতা বেশ উপকারী। >> দ্রুত ব্রণের দাগ দূর করার উপায় | বাছাইকৃত ১০ টিপস!

ব্ল্যাকহেডস বা হোয়াইটহেডস দূর করেঃ 

ব্ল্যাকহেডস সৌন্দর্য সচেতনদের কাছে অনেক বড় ধরনের একটি সমস্যা। সাধারণত শরীরে হরমোনের অসামঞ্জস্যজনিত কারনে মুখে, নাকে, থুতনিতে ব্ল্যাকহেডস বা হোয়াইট হেডস হয়ে থাকে।  নিমপাতা গুড়া, কমলার খোসা গুড়া এবং গোলাপজল একসাথে মিশিয়ে পাতলা পেস্ট তৈরি করে নিন। 

নিম পাতা মুখে দিলে কি হয়

এরপর পুরো মুখে মেখে ২৫-৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে এলে হাতে  কয়েক ফোটা গোলাজল নিয়ে ব্ল্যাকহেডস, হোয়াইট হেডস এর জায়গায় কিছুক্ষন ঘষুন।এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে  ফেলুন। এভাবে নিয়মিত লাগালে আপনার মুখ থেকে ব্ল্যাকহেডস ও হোয়াইটহেডস পুরোপুরি দূর হয়ে আপনার মুখ দেখাবে পরিষ্কার ও কোমল।

ত্বকের রুক্ষতা দূর হয়ঃ 

ত্বকের শুষ্কতা দূর করতে নিমপাতা ভীষণ উপকারী। নিম পাউডারের সাথে কয়েক ফোটা আঙুর বীজের তেল মিশিয়ে মুখে লাগান। ১০-১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।  নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকের রুক্ষভাব দূর হয়।

ত্বকে বয়সের ছাপ কমায়ঃ  

নিমের তেলে প্রচুর ভিটামিন ই এবং ফ্যাটি এসিড রয়েছে। ফলে নিমের তেল নিয়মিত মুখে মালিশ করলে ত্বকের অকাল বার্ধক্য রোধ করা যায়। ভিটামিন ই তে প্রচুর পরিমানে  অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যা ত্বককে ফ্রি রেডিক্যাল থেকে মুক্ত রাখে। সুতরাং, ত্বক দীর্ঘদিন সুস্থ থাকে এবং বয়সের ছাপ সহজে পড়তে পারেনা।

নিমপাতা দিয়ে ব্রণ দূর করার উপায়

নিমপাতায় রয়েছে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল ক্ষমতা। শুধুমাত্র নিমের পানি ত্বকের যত্নে অত্যন্ত কার্যকরী প্যাক। তাই ব্রণ থেকে শুরু করে ত্বকের যেকোন সংক্রমজনিত সমস্যা সমাধানে নিমপাতা অতুলনীয়।  নিমপাতা ফেসপ্যাক নিয়মিত ব্যবহার করলে ব্রণের ঝামেলা খুব সহজেই দূর হয়ে যায়। 

ফেসপ্যাক-১ঃ 

এক চা চামচ নিমপাতা পাউডার, এক চা চামচ বেসন এবং এক চা চামচ টক দই একসাথে ভালোভাবে মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে নিন। এরপর পরিস্কার মুখে ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। ১০-১৫ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। যাদের ত্বক শুষ্ক তাদের জন্য এই প্যাকটি খুব উপকারী। নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণের সমস্যায় অবিশ্বাস্য ফলাফল পাবেন। তাছাড়া এলোভেরা দিয়ে রূপচর্চা । মুখে এলোভেরা ব্যবহারের নিয়ম জেনে নিন!

ফেসপ্যাক-২ঃ 

তিন টেবিল চামচ নিমপাতার গুড়া, তিন টেবিল চামচ কমলার খোসা গুড়া এবং দুই টেবিল চামচ দুধ একসাথে মিশিয়ে প্যাক বানিয়ে নিন। এরপর মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে দিন, এবার ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি তৈলাক্ত ত্বকের ব্রণ দূর করতে ভীষণ কার্যকর।

>> মুখের মেছতা দূর করার উপায় সমূহ জেনে নিন!

ফেসপ্যাক-৩ঃ 

পরিমানমত নিমপাতা বেটে নিন, এরপর এতে কয়েক ফোটা লেবুর রস ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এরপর প্যাকটি মুখে লাগিয়ে ১-২মিনিট স্ক্রাব করুন। এবার ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। মুখে ব্রণের দাগ একেবারে মুছে যাবে। সেই সাথে  নতুন করে মুখে ব্রণ ফিরে আসাও রোধ করবে।

ফেসপ্যাক-৪ঃ 

২চা চামচ নিমপাতার পেস্টের সাথে ২চা চামচ চন্দন গুড়ো ভালভাবে মিশিয়ে প্যাক বানিয়ে নিন। এখন পুরো মুখে লাগিয়ে ২০-২৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এইবার হালকা কুসুম গরম অল্প একটু পানি হাতে নিয়ে পুরো মুখ আলতো করে কিছুক্ষণ স্ক্রাব করুন। এইবার ঠান্ডা পানির ঝাপটা দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ৩-৪ দিন ব্যবহারে ব্রণের সমস্যায় দ্রুত সমাধান পাবেন।

>> মুখে ব্রণ দূর করার উপায় – ১১ টি ঘরোয়া প্রতিকার!

নিম পাতা মুখে দিলে কি হয় আশা করি খুব স্বচ্ছ একটা ধারণা ইতিমধ্যে পেয়ে গেছেন। নিমপাতায় বিভিন্ন ভেষজ উপাদান থাকে যা আপনার ত্বককে দ্রুত উজ্জ্বল এবং দাগমুক্ত করতে সত্যিই ভীষণ উপকারী।

এছাড়াও নিয়মিত নিমপাতা ফেসপ্যাক ব্যবহারে আপনার ত্বকে বয়সের ছাপ সহজে আসতে দেয়না। তাই ত্বক উজ্জ্বল, দাগমুক্ত, সজীব ও প্রানবন্ত থাকে দীর্ঘদিন। 

>> নিম পাতার ১০ উপকারিতা -জেনে নিন এর জাদুকরি গুণাগুণ!

শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top