টি টুয়েন্টি ওয়ার্ল্ড কাপের ফাইনাল নিশ্চিত করল পাকিস্তান!
ফাইনাল নিশ্চিত করল পাকিস্তান

টি টুয়েন্টি ওয়ার্ল্ড কাপের ফাইনাল নিশ্চিত করল পাকিস্তান!

আইসিসি টি টুয়েন্টি ওয়ার্ল্ডকাপের শেষ চার দল নিয়ে সেমি ফাইনাল শুরু হয়েছে। সেরা চারে রয়েছে পাকিস্তান, ইন্ডিয়া, নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড। সেমি ফাইনালে প্রথম ম্যাচে পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ড মুখোমুখি হয়। 

নিউজিল্যান্ড টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ওপেনিংয়ে মাঠে নামে ফিন এলেন ও ডেভন কোনওয়ে। অন্যদিকে পাকিস্তানের পক্ষে পক্ষে প্রথম ওভারে বলে এসেই দলকে সাফল্য এনে দেয় শাহীন আফ্রিদি। ইনিংসের তৃতীয় বলে ৪ রান করে এলবিডব্লিউয়ের শিকার হয়ে  সাজঘরে ফিরে এলেন। এরপর মাঠে নামে কেন উইলিয়ামসন। 

উইলিয়ামসন আস্তে ধীরে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। কোনওয়ে তাকে ভালোই সঙ্গ দিচ্ছিলো। তবে খুব বেশীক্ষণ টিকতে পারেনি কোনওয়ে। ষষ্ঠ ওভারে ২০ বলে ২১ রান করে রান আউটের শিকার হয়ে সাজঘরে ফিরে ডেভিড কোনওয়ে। কোনওয়ের পর উইলিয়ামসনকে সঙ্গ দিতে আসে গ্লেন ফিলিপস। তবে তাকেও শীঘ্রই সাজঘরে ফিরতে হয়। 

মাত্র ৪৯ রানে ৩ উইকেট হারালে নিউজিল্যান্ড বেশ চাপে পড়ে যায়। চতুর্থ উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে তোলে উইলিয়ামসন ও মিচেল। দুজনে মিলে দলকে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত তাদের জুটি ভাঙে শাহীন আফ্রিদি।

৪২ বলে ৪৬ রানের ইনিংস খেলে বোল্ড আউট হয়ে সাজঘরে ফিরে কেন উইলিয়ামসন। উইলিয়ামসন অল্পের জন্য হাফ সেঞ্চুরি মিস করলেও সেঞ্চুরি তুলে নেয় মিচেল। শেষে এসে নিসহামও অসাধারণ ব্যাটিং করে। 

এতে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৫২ রান। ৩৫ বলে ৫৩ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে অপরাজিত ছিল মিচেল। অপর প্রান্তে ১২ বলে ১৬ রান করে অপরাজিত ছিল নিসহাম। পাকিস্তানের পক্ষে দুইটি উইকেট নেয় শাহীন আফ্রিদি ও একটি উইকেট শিকার করে মোহাম্মদ নওয়াজ। 

১৫৩ রানের টার্গেট নিয়ে মাঠে নামে পাকিস্তান। ওপেনিংয়ে মোহাম্মদ রিজওয়ান ও বাবর আজম নেমে গুছিয়ে খেলতে শুরু করে। তাদের পার্টনারশিপ দলকে নিয়ে যেতে থাকে জয়ের দিকে।

শেষ পর্যন্ত ১৩তম ওভারে তাদের জুটি ভাঙতে সক্ষম হয় ট্রেন্ট বোল্ট। হাফ সেঞ্চুরি করার পরে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মিচেলের হাত বন্দি হয়ে সাজঘরে ফিরে বাবর আজম। এতে ১০৫ রানের পার্টনারশিপ ভাঙে। 

বাবরের আউটের পর মোহাম্মদ রিজওয়ানও হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেয়। হাফ সেঞ্চুরির পর রিজওয়ানও খুব বেশীক্ষণ টিকতে পারেনি। ট্রেন্ট বোল্টের বলে গ্লেন ফিলিপসের হাত বন্দি হয়ে সাজঘরে ফিরে রিজওয়ান।

এরপর দলকে একেবারে জয়ের দ্বার প্রান্তে নিয়ে যায় মোহাম্মদ হারিস। কিন্তু একেবারে জয়ের আগ মুহূর্তে, জয় হতে মাত্র ২ রান দূরে থাকতে আউট হয় হারিস। ২৬ বলে ৩০ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেয় হারিস। শেষের দুই রান শান মাসুদ সংগ্রহ করে দলকে জয় এনে দেয়।

এতে ৫ বল বাকি থাকতেই ৭ উইকেটে বিশাল জয় পায় পাকিস্তান। জয়ের মাধ্যমে ফাইনাল নিশ্চিত করে পাকিস্তান। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে দুটি উইকেট শিকার করে ট্রেন্ট বোল্ট ও একটি উইকেট নেয় মিচেল স্ট্যানার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর 

নিউজিল্যান্ড – ১৫২/৪ (২০) 

ড্রায়েল মিচেল ৫৩

কেন উইলিয়ামসন ৪৬

ডেভন কোনওয়ে ২১ 

শাহীন আফ্রিদি ২/২৪

মোহাম্মদ নওয়াজ ১/১২

পাকিস্তান – ১৫৩/৩ (১৯.১)

মোহাম্মদ রিজওয়ান ৫৭ 

বাবর আজম ৫৩

মোহাম্মদ হারিস ৩০

ট্রেন্ট বোল্ট ২/৩৩

মিচেল স্ট্যানার ১/২৬

ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছে মোহাম্মদ রিজওয়ান।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top
Scroll to Top