ফুটবল খেলার নিয়ম কানুন | ইতিহাস সহ বিস্তারিত জানুন!

ফুটবল খেলার নিয়ম কানুন – মনের শান্তি ও প্রফুল্লতার উদ্দেশ্যে বর্তমান বিশ্বে যত প্রকার খেলাধুলা প্রচলিত আছে তাদের মধ্যে ফুটবল অন্যতম। বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা হচ্ছে ফুটবল। শহর কিংবা গ্রাম সর্বত্র দেখা যায় এই খেলা নিয়ে  মানুষের মাঝে ব্যাপক উত্তেজনা। 

লক্ষ করলে দেখা যায়, ছোট থেকে বড়, বড় থেকে বৃদ্ধ, প্রায় সকল বয়সের মানুষের কাছেই এই খেলা প্রিয়। মেয়েরাও এই খেলায় পিছিয়ে নেয়। তারাও মেয়ে ভিত্তিক বেশকিছু টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করে থাকে। এছাড়া পেশাদার ফুটবল ক্যাম্প ওলিতে গলিতে ছড়িয়ে আছে অসংখ্য, যেখানে ছেলে মেয়ে উভয়েই ফুটবল নিয়ে চর্চা করে থাকে। 

আমাদের দেশের শহর থেকে গ্রাম, সবখানেই মানুষ শরীরকে চাঙ্গা করতে ফুটবল খেলে। এবং ফুটবলকেই পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছে এমন মানুষের সংখ্যাও কম নয়।

আজকের আর্টিকেলে আমরা ফুটবল খেলার নিয়ম কানুন সম্পর্কে বিস্তারিত জানবো। 

ইতিহাসঃ

ফুটবল খেলার উৎপত্তি ১৮৬৩ সালের তৎকালীন ইংল্যান্ডে। অধিকাংশের মতানুসারে, ফুটবল খেলার উৎপত্তি প্রাচীন চীনে। প্রায় আড়াই হাজার বছর পূর্বে। খেলার সকল আধুনিক  নিয়ম কানুন চীনেই তৈরী করা হয়। 

ইতিহাস  গবেষণা করে  বৈচিত্র্য  সকল তত্ত্ব  উপাত্তের ভিত্তিতে যা পাওয়া যায় তা হলো , ফুটবল শুরু করেছিলো আদিযুগে গ্রিক ও রোমান সম্প্রদায়িকগোষ্টী  ৩৫০ খ্রিস্টাব্দে। বিভিন্ন দেশ ভিন্ন নামে এই খেলার নামকরণ করেছে। যেমনঃ- মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই খেলার নাম সকার(Soccer). আবার বাংলাদেশে এই খেলার নাম ফুটবল। ইউরোপীয় মহাদেশের অধিকাংশ ভেন্যুতে  ফুটবল খেলাকে জাতীয় খেলা হিসেবে স্বীকৃতি প্রদান করেছে। আমাদের দেশের সর্বত্রই এই খেলার রয়েছে তুমুল জনপ্রিয়তা। 

ফুটবল খেলার নিয়ম কানুন

ফুটবল খেলার নিয়ম কানুনঃ

ফুটবল  খেলা বর্তমানে পুরো বিশ্বব্যাপী প্রসারিত।  আমাদের দেশের  সর্বোপরি  ফাকা স্থানে  এই ফুটবল খেলা হয়ে থাকে। লক্ষ করলে দেখা যায় যে, আধুনিক  বিশ্বের প্রায় সবকটি  দেশেই ফুটবল খেলা হয়ে থাকে। ফুটবলের প্রভাব  বিশ্যব্যাপী লহ্মণীয়। আমাদের দেশের অনেকেই ফুটবল খেলার সকল নিয়ম কানুন সম্পর্কে পুরোপুরি জানেনা।ফুটবল খেলার সকল নিয়ম কানুন সম্পর্কে জানানোই আজ আমাদের প্রধান লক্ষ। 

তাই ফুটবল খেলতে হলে ফুটবল খেলার নিয়ম কানুন সম্পর্কে অবশ্যই  আমাদের জ্ঞান থাকতে হবে। এক্ষেত্রে সবার প্রথমে যে বিষয়টি আসে তা হল মাঠ। ফুটবল খেলার মাঠ অবশ্যই আয়তাকার হতে হবে, হতে হবে পরিষ্কার,হতে হবে খেলার উপযোগী। চলুন দেখে নেওয়া যাক মাঠ সম্পর্কিত খুটিনাটি বিষয়।।  

মাঠঃ 

ফুটবল খেলার জন্য ১০০-১২০ গজ দীর্ঘ এবং ৫০-৬০ গজ প্রস্থ একটি সমতল মাঠের প্রয়োজন হয়। ময়দানের এক পারে একটি বার এবং অপর পারে আরেকটি বার থাকে। বারের মাপ হচ্ছে ৮ ফুট। একটা বার থেকে আরেকটা বারের অবস্থান  ৮ গজ দূরে। 

দাগঃ

প্রতিটি দাগ চওড়া হতে হবে ৫ ইঞ্চি করে। মাঠের দৈর্ঘ্যের দাগ কে টাচ লাইন প্রস্থের দাগ কে গোল লাইন বলা হয়। 

ফুটবলের ওজনঃ  

ফুটবল খেলার নিয়ম কানুন সঠিকভাবে পালন করতে বলের ওজন সঠিক হওয়া গুরুত্বপূর্ণ।বলের ওজন সাধারণত ৮১০-৮৫০ গ্রাম হয়ে থাকে। 

খেলোয়াড়ঃ 

ফুটবলের নিয়ম কানুন অনুযায়ী একটি ম্যাচ খেলতে দুপক্ষ মিলে মোট ২২ জন খেলোয়াড় এর দরকার হয়। যেখানে প্রতি পহ্মে ১১ জন খেলোয়াড় বিভিক্ত হয়ে খেলে থাকে। একটি দলের অতিরিক্ত ৭ জন করে খেলোয়াড় মাঠের বাইরে থাকে। 

রেফারিঃ

ফুটবল  খেলা সুষ্ঠভাবে পরিচালনা করতে ১ টি রেফারি ও ২ টি লাইন্সম্যান এর প্রয়োজন হয়। 

ফুটবল খেলার নিয়ম – কানুনকার্ড ও জার্সিঃ

অন্যান্য খেলার মত ফুটবল খেলার নিয়ম কানুন ও বেশ বৈচিত্র্যময়। ফুটবলের সকল নিয়ম রীতি ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা কর্তৃক প্রণীত । ১৯৮৪ সালের দিকে এসে কার্ড দেখানোর নিয়ম প্রচলিত হয়।  খেলোয়াড়দের সহজে চেনার স্বার্থে ১৯৩৫ সালে জার্সি নাম্বার চালু করে ফিফা (FIFA)। 

ফুটবল খেলার পদ্ধতিঃ

ফুটবল খেলার শুরুতে প্রান্তের মাঝখানে প্রতিপক্ষ কে সামনা-সামনি দাঁড়াতে হয়। রেফারি বাঁশিতে ফুঁ দেওয়া মাত্রই শুরু হয়ে যায়। এবং প্রত্যেক খেলোয়াড় তাদের নিজ নিজ অবস্থানে ফিরে যায়। ১১জন খেলোয়াড়ের মাঝে ৫ জন খেলোয়াড় প্রথমের ভাগে খেলে থাকে তাদেরকে  ফরোয়ার্ড বলা হয়, ফরোয়ার্ড এর পেছনের দিকে ৩ জন খেলে থাকে তাদেরকে  মিডফিল্ডার বলা হয়।

মিডফিল্ডার এর পেছনের দিকে যারা ২ জন খেলে থাকে তাদেরকে ডিফেন্ডার বলে, গোলবারের সামনে ১ জন থাকে তাকে “গোলরক্ষক” বলা হয়। তিনি তার সর্বোচ্চ দিয়ে বলকে গোলবারে প্রবেশ করতে বাধা প্রদান করেন। একটি ফুটবল ম্যাচ এর সময়সীমা ৯০ মিনিট। মাঝে ৪৫ মিনিটের মাথায় কিছু সময় বিরতি পাওয়া যায়।

পরিসমাপ্তিঃ

ফুটবল খেলা কোটি কোটি মানুষের  কাছে অফুরন্ত তৃপ্তি ভোগের মাধ্যম।  ফুটবল খেলায় থাকে আশা -নিরাশা, থাকে উত্তেজনা  হার- জিত থাকে আনন্দ- বেদনার অশ্রু।  সেই আনন্দ-বেদনার উচ্চে  থাকে মনোমুগ্ধকর লড়াই আর নিজেদের সেরা প্রমান করার প্রচন্ড  ইচ্ছা, বিজয়ের প্রচন্ড  বাসনা।

 বিশ্বব্যাপী ফুটবল খেলা মানুষের মাঝে অফুরন্ত  ভালোবাসার  বন্ধন সৃষ্টি করে। এ জন্যই আজ ফুটবল খেলা বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছে। আশা করি আজকের প্রবন্ধটি পড়ে আপনারা ফুটবল খেলার নিয়ম কানুন সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

লেখকঃ ইবরাহিম আরিয়ান

আরো পড়ুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *