বাংলাদেশের বড় সংগ্রহের পর

তাসকিন-রিয়াদ নৈপুণ্যে দ্বিতীয় দিন শেষে ৩৫৪ রানে এগিয়ে টাইগাররা!

হারারে টেস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের প্রথম ইনিংসে টাইগারদের সংগ্রহ ৪৬৮ রান। জিম্বাবুয়েও নিজেদের সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে তারা ১ উইকেট হারিয়ে ১১৪ রান সংগ্রহ করেছে । 

বাংলাদেশের বড় সংগ্রহের পর, দূর্দন্দ সূচনা করেন জিম্বাবুয়ের দুই ওপেনার ব্যাটসম্যান। ৬১ রানের পার্টনারশিপ গড়ে তুলেন তারা। সাকিব আল হাসান বাংলাদেশের পক্ষে প্রথম উইকেটটি তুলে নেন। ব্যাক্তিগত ৪১ রানে এলবিডব্লিউয়ের শিকার হয়ে মিল্টন শুম্বা সাজঘরে ফেরেন।

তাসকিন ভালো বোলিং করলেও উইকেট পান নি। দিনশেষে জিম্বাবুয়ে সংগ্রহ করে ১ উইকেটে ১১৪ রান।

তাসকিনকে নিয়ে প্রথম দিনের শেষের সময়টুকু নির্বিঘ্নে কাটিয়েছিলেন মাহমুদুল্লাহ। তাসকিন যেভাবে শুরু করেছিলেন দ্বিতীয় সকালেও সেভাবেই উইকেট আকড়ে ধরে রেখেছেন। অসাধারন ব্যাটিং ও আগ্রাসী মনোভাবে ক্যারিয়ারের প্রথম ফিফটি তুলে নেন তিনি।

মাহমুদুল্লাহ ও তাসকিন ১৯১ রানের জুটি করতে সক্ষম হন। এটি নবম উইকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ও জিম্বাবুয়ের মাঠে যেকোনো উইকেটে টাইগারদের সর্বোচ্চ রানের জুটি।

প্রায় ১৭ মাস পরে টেস্ট ম্যাচ খেলতে নেমেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে আবারও নিজেকে প্রমাণ করেছেন মাহমুদুল্লাহ। এটি তার পঞ্চম টেস্ট সেঞ্চুরি। ৭৫ রান করে সাজঘরে ফেরেন তাসকিন। তিনি ১৩৪ বল মাঠে ছিলেন, হাঁকিয়েছেন ১১টি চার। মাহমুদুল্লাহ অপরাজিত থাকেন ১৫০ রানে।

দ্বিতীয় দিন শেষে বাংলাদেশ সংগ্রহ করেছে ৪৬৮ রান। জিম্বাবুয়ের পক্ষে মুজারাবানি নিয়েছেন ৪টি উইকেট। তিরিপানো ও ভিক্টর ২টি করে উইকেট শিকার করেছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

টস : বাংলাদেশ

বাংলাদেশ ৪৬৮/১০ (১ম ইনিংস- ১২৬-ওভার)


মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ১৫০*, লিটন দাস ৯৫, তাসকিন আহমেদ ৭৫, মুমিনুল হক ৭০, সাদমান ইসলাম ২৩, মুশফিকুর রহিম ১১, সাকিব আল হাসান ৩, নাজমুল শান্ত ২, সাইফ হাসান ০;
মুজারাবানি ৪/৯৪, তিরিপানো ২/৫৮।

জিম্বাবুয়ে ১১৪/১ (৪১-ওভার)


শুম্বা ৪১, ব্রেন্ডন ৩৭*, কাইটানো ৩৩*;
সাকিব আল হাসান ১/৪৩।

দ্বিতীয় দিন শেষে বাংলাদেশ ৩৫৪ রানে এগিয়ে।

শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top