ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম

ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম ও বয়স এবং এর উপকারিতা জেনে নিন!

ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানি না। তবে আপনার শিশুর জন্য ভিটামিন এ ক্যাপসুল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি সেবন করার দ্বারা শিশুর রোগ প্রতিরোধ  থেকে শুরু করে নানা ভাবে এই ক্যাপসুল আমাদের সহায়তা করে থাকে। তাই আমাদের অবশ্যই ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাবার নিয়ম জেনে নিতে হবে।

ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম –

মনে রাখবেন, আপনার শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর সময় যাতে তার পেট খালি না থাকে। খালি পেটে এটি খাওয়ালে ক্ষতি হতে পারে। ভিটামিন এ ক্যাপসুলের মুখ কেটে ভিতরে থাকা তরল শিশুকে খাওয়ানো হয়। জোর করে বা কান্না করা অবস্থায় শিশুকে এটি খাওয়ানো ঠিক নয়। কেননা ক্যাপসুলের ভিতরে থাকা তরল লালার সাথে বেরিয়ে যাবার সম্ভাভনা থাকে।

ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ার বয়স –

৬ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়। তবে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুদের একটি করে নীল রঙ্গের ক্যাপসুল এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সীদের একটি করে লাল রঙ্গের ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়। ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম আরো পড়ুনঃ ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার সমূহ এবং এর উপকারিতা জেনে নিন!

ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম

ভিটামিন এ ক্যাপসুল এর উপকারিতা –

শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর অনেকগুলো উপকারিতা রয়েছে। চলুন একনজরে জেনে নি ভিটামিন এ ক্যাপসুল এর উপকারিতা সমূহঃ

  • ভিটামিন এ ক্যাপসুল শিশুর রাতকানা এবং অন্ধত্ব রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে।
  • শিশুর দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।
  • ভিটামিন এ ক্যাপসুল দৃষ্টিশক্তি স্বাভাবিক রাখতে দারুণ ভাবে কাজ করে।
  • এটি জীবাণু সংক্রমণ থেকে শরীরকে রক্ষা করে।

ভিটামিন এ ক্যাপসুল এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া –

ভিটামিন এ ক্যাপসুল সম্পূর্ণ নিরাপদ তাই নির্বিঘ্নে এটি খাওয়ানো যায়। ভিটামিন এ ক্যাপসুল এর কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। আরো পড়ুনঃ ভিটামিন সি জাতীয় খাবার কি কি |বিস্তারিত জেনে নিন!

শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top