মন ভালো করার উপায়

মন ভালো করার সেরা ১০টি উপায় জেনে নিন!

মন ভালো করার উপায় – বর্তমান প্রজন্মের এখন হরহামেশাই মন খারাপ হচ্ছে। আস্তে আস্তে এটি রূপ নিচ্ছে ডিপ্রেশনে। ফলে তরুণ-তরুণীদের ক্যারিয়ারে এর প্রভাব পড়ছে। 

তবে মন ভালো করার উপায় কী? জানতে হলে লেখাটি পড়তে থাকুন শেষ পর্যন্ত। 

জেনে নিন ১০টি মন ভালো করার উপায় 

বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করে মন ভালো করা যায়। ঠিকমতো অনুসরণ করলে পদ্ধতিগুলো দ্রুত আপনার মন ভালো করতে সক্ষম। 

১. আর্থিক স্বচ্ছলতা

আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল ব্যক্তি প্রায়শই হীনমন্যতায় ভোগেন। তাই আপনি সমাজের যে অবস্থানেই থাকুন, আপনাকে আর্থিক পীড়া থেকে মুক্তি পেতে হবে৷ এটি মন ভালো রাখার অন্যতম শর্ত। 

২. নিজেকে সময় দিন

নিজেকে সময় দেওয়ার অর্থ হচ্ছে নিজের ভালোলাগার কাজগুলো করা। যখনই মন খারাপ হবে আপনার পছন্দের কাজটি করে ফেলুন। এতে ভেতর থেকে একটা তৃপ্তি পাওয়া যায়। এবং নিমিষেই মন খারাপ ভাব দূর হয়। 

৩. আপনজনদের সাথে সময় কাটান

পরিবারের মানুষের সাথে সময় কাটালে মানসিক চাপ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তাই মন খারাপ হলে পরিবারের সদস্যদের কাছে যান। তাদের সাথে গল্প করুন। সম্ভব হলে আপনার মনের অবস্থা তাদের খুলে বলুন। 

৪. প্রিয়জনকে জড়িয়ে ধরুন

প্রিয়জন আপনার কাছে থাকলে তাকে জড়িয়ে ধরুন। বিজ্ঞানীদের মতে ভালোবাসার মানুষকে জড়িয়ে ধরলে শরীরে অক্সিটোসিন নিঃসৃত হয়। এই হরমোন মস্তিষ্কে ভালো লাগার অনুভূতি তৈরি করে৷ 

৫. হাঁটতে বের হোন

কখনো হঠাৎ মন খারাপ হলে হাঁটতে বের হোন। ভালো হয় যদি খোলামেলা কোনো জায়গায় হাঁটতে পারেন। প্রকৃতির মন ভালো করার এক অদ্ভূত ক্ষমতা আছে। 

৬. সৃজনশীল কিছু করুন

আপনি যদি ছবি আঁকতে পারেন তবে একে ফেলুন একটা সুন্দর স্কেচ। অথবা রান্না করে ফেলুন একটি অভিনব রেসিপি। 

আপনার সৃজনশীলতা আপনার মনকে প্রভাবিত করবে। আপনি নিজেকে মূল্যবান ভাবতে শুরু করবেন। এবং এভাবেই এটি আপনার মন খারাপ ভাব দূর করবে। 

৭. গান শুনুন

হঠাৎ মন খারাপের কোনো কারণ না পেলে গান শুনুন। গান মানুষের মন ভালো করার এক অদ্ভূত ক্ষমতা রাখে। তবে গানটি অবশ্যই আপনার পছন্দের হতে হবে যা আপনার সুখের স্বৃতিগুলো মনে করিয়ে দেয়। 

৮. পুরোনো ছবিগুলি দেখুন

বন্ধু বা পরিবারের সাথে কাটানো যে ছবিগুলো ক্যামেরাবন্দী করে রাখা আছে তা মন খারাপের সময় দেখতে পারেন। পুরোনো ছবির পেছনের গল্প যখন আপনার মনে পড়বে তখন অগোচরেই আপনার মন ভালো হয়ে যাবে। 

৯. ডায়েট ঠিক রাখুন

আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে একটা কথা আছে; ‘সকল রোগের শিখর হলো পেট।’ অর্থাৎ আপনার পরিপাকতন্ত্রে খাবারে কোনো সমস্যা থাকলে তা আপনার শরীরের উপর প্রভাব ফেলবে। এবং শরীর মনের উপর প্রভাব ফেলবে। 

তাই মন ঠিক রাখতে পুষ্টিকর ও সুষম খাদ্য গ্রহণ করুন। ডায়েট মন খারাপের সাথে পরোক্ষভাবে জড়িত। 

১০. পরিমাণমতো পানি পান করুন

অনেকসময় ডিহাইড্রেশনের কারণে আমাদের মন খারাপ হয়। তাই, মন ভালো রাখতে পরিমাণমতো পানি পান করুন। শরীরে পানির পরিমাণ কম থাকলে তা মস্তিষ্কে প্রভাব ফেলে। 

মন ভালো করতে যা কিছু এড়িয়ে চলবেন

মন ভালো রাখতে কিছু কাজ করার পাশাপাশি কিছু না করেও থাকতে হবে৷ এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কিছু না করাই অনেক কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। 

কখনো নিজেকে অন্যের সাথে তুলনা করবেন না

যে মুহুর্তে আপনি নিজেকে অন্যের সাথে তুলনা করবেন, আপনার মনে একটা প্রেসার তৈরি হবে। যার সাথে আপনি নিজেকে তুলনা করছেন সে জীবনে উন্নতি করলেও আপনার প্রেসার ফিল হবে, আবার সে কিছু না করতে পারলেও আপনার মধ্যে একটা প্রেসার কাজ করবে। 

কোনো অংশেই তার থেকে পিছিয়ে থাকা যাবে না, এমন মনোভাব নিয়ে আপনি সময় পার করবেন। যা অনায়াসেই আপনার মনের উপর প্রভাব ফেলবে। যার শেষ পরিণতি হিসেবে আপনার মন খারাপ হবে।

>> মস্তিষ্কের জন্যে ক্ষতিকর অভ্যাস গুলো দূর করে নিজেকে পরিবর্তন করার উপায় 

মন ভালো রাখতে হবে- এমন চিন্তা মাথায় আনবেন না

যখন আপনি জোর করে আপনার মন ভালো করার চেষ্টা করবেন তখন হীতে বিপরীত হতে পারে। তাই সবচেয়ে ভালো উপায় আপনার চারপাশের পরিবেশের সাথে নিজের মনকে ডুবিয়ে রাখা। অতীত এবং ভবিষ্যত নিয়ে চিন্তা না করে বর্তমানকে অনুভব করা। 

কারো উপর আশা না রাখা

কোনোকিছুর জন্য অন্যের উপর আশা রাখা মন খারাপের অন্যতম একটি কারণ। তাই যেকোনো ব্যক্তিই হোক না কেন কারো উপরে আশা না রেখে নিজের উপর নির্ভরশীল হোন। 

>> মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে ইসলাম কী বলে? আসুন জেনে নি!

শেষ কথা

মন খারাপের কারণটা যতটা না বাহ্যিক তার চেয়ে বেশি অভ্যন্তরীণ। তাই আমাদের মস্তিষ্কের অভ্যন্তরীণ পরিবেশকে যে যত বেশি পরিষ্কার রাখতে পারবে মন ভালো করার উপায় গুলো তত বেশি তার জন্য কার্যকর হবে। 

লিখেছেনঃ আরিফুল আবির

শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top