ম্যারাথন কেন ২৬.২ মাইলের হয়ে থাকে । ম্যারাথনের ইতিহাস সহ বিস্তারিত!

ম্যারাথনের ইতিহাস – কয়েক বছর আগেও বাংলাদেশে ম্যারাথন শব্দটি তেমন একটি পরিচিত ছিল না। কিন্তু বর্তমানে আমাদের দেশে নিয়মিত ম্যারাথন ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।  দেশের গণ্ডি পেরিয়ে আমাদের ক্রীড়াবিদরা এখন ভারতসহ আরো অনেক দেশেই  ইন্টারন্যাশনাল ম্যারাথন গুলোতে অংশগ্রহণ করে।

আমরা ম্যারাথনে অংশগ্রহণ করলেও অনেকেই এর ইতিহাস সম্পর্কে জানি না।  কখনো ভেবে দেখেছেন কি এই ম্যারাথনের শুরুটা কিভাবে হয়েছিল?  আর এটাই বা কখনো ভেবেছেন কি ম্যারাথন কেন ২৬.২ মাইল এর হয়ে থাকে?

 আজকের নিবন্ধে আমরা  আলোচনা করব ম্যারাথনের ইতিহাস এবং উৎপত্তি স্থান নিয়ে। তাহলে চলুন জেনে নি যেভাবে ম্যারাথন শুরু হয়েছিল-

ম্যারাথনের ইতিহাস

আদি গ্রীক সভ্যতার সময়ে ম্যারাথন দৌড়ের প্রচলন শুরু হয়।এর পিছনে রয়েছে অসাধারণ একটি ঘটনা।  খ্রিস্টপূর্ব ৪৯০ এর দিকে এথিয়ান ও পার্সিয়ানদের মধ্যে যুদ্ধ সংঘটিত হয়।  আর এই যুদ্ধে যখন পার্সিয়ান রা  পরাজিত হয়,   তখন সেই সংবাদ এথিয়ানদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য যুদ্ধক্ষেত্র থেকে দৌড়ানো শুরু করেন পিডিপাইডস। ইতিহাস ঘাটাঘাটি করে জানা যায় যে, ফিডিপাইডস  প্রায় ২৫ মাইল দৌড় দিয়ে ম্যারাথন শহরে  এসে এই খবর দেন। 

ফিডিপাইডসের  এই দৌড়ের স্মৃতি রক্ষার্থে প্রতিবছর ম্যারাথন নামক দৌড়ের আয়োজন করা হয়ে থাকে। এখন স্বাভাবিকভাবে আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে এই ২৫ মাইল না হয় ২৬.২ মাইল হল কেন?

পিয়ারো দ্য কুবার্তো কে  আধুনিক অলিম্পিকের জনক বলা হয়।  তিনি হাজার ১৮৯৬ সালে অনুষ্ঠিত ম্যারাথন দৌড়টি গ্রিসের সেই বিখ্যাত ম্যারাথন ব্রিজ থেকে শুরু করেন।  তখন এ দৌড়ে দূরত্ব ছিল ২৫ মাইল। এবং  পরবর্তী দুই অলিম্পিক ম্যারাথন এর কোন নির্দিষ্ট দূরত্ব ছিল না। দূর সীমানা নির্ধারণ করা হয় 1908 সালে লন্ডন অলিম্পিকে। 

 তখন দূরত্ব ছিল প্রায় ২৬ মাইল উইন্ডসর ক্যাসল থেকে হোয়াইট সিটি পর্যন্ত। মজার ব্যাপার হলো রাজকীয় পরিবারের ভিউইং বক্সের সামনে  দৌড় শেষ করার জন্য সেখানে আরও 385 গজ দূরত্ব বাড়াতে হয়।  আর তাতেই সেই সময় ম্যারাথন দৌড় হয় ২৬.২ মাইল।আর তখনই  অলিম্পিক কমিটি ম্যারাথনের সেই দূরত্বকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয় এবং পরবর্তীতে আন্তর্জাতিকভাবে ম্যারাথন ২৬.২ মাইল দূরত্বের হয়ে থাকে।

ম্যারাথন দৌড় হলো খুবই আকর্ষণীয় একটি খেলা।  এখানে বয়স কোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় না। যে কেউ চাইলেই ম্যারাথন এর মত ইভেন্টে অংশগ্রহণ করতে পারে।

 এখন বাংলাদেশে নিয়মিত ম্যারাথন ইভেন্ট হয়ে থাকে।  আমাদের দেশে ঢাকা ম্যারাথন, চিটাগং ম্যারাথন, সিলেট এবং আরও বিভিন্ন ডিস্ট্রিকে ম্যারাথনের মতো বড়-বড় ইভেন্ট আয়োজিত হয়।  আর  এবারই প্রথম মুজিব বর্ষ হিসেবে বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধুর নামে ম্যারাথন ইভেন্টের আয়োজন করা হয়েছে। 

আরো পড়ুন-
শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *