যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায় | ১০ টি গুরুত্বপূর্ণ খাবার তালিকা!

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায় তা অনেকেই জানতে চায়। সারা পৃথিবীর এক-তৃতীয়াংশ জনগণ যেখানে ওজন কমাতে ব্যস্ত সেখানে কারো কাছে ওজন বাড়ানোটাই যেন হয়ে উঠেছে বেশ উদ্বিগ্নের। ওজন বাড়ানোর জন্য রয়েছে বেশকিছু খাবার।

মোটা হওয়ার খাদ্য তালিকা  নিয়ে গুগলে ও ইউটিউবে রয়েছে শতশত কনটেন্ট। এছাড়াও আপনি সার্চ করলে দেখতে পাবেন মোটা হবার অভিনব সব উপায়। তবে মোটা হবার যতরকম পদ্ধতিই থাকুক না কেন, খাবারের কোনো বিকল্প নাই। তাই আজকের প্রবন্ধে আমরা যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়  সেসব নিয়ে আলোচনা করবো। 

ভিডিও টি দেখুনঃ

প্রাকৃতিক উপায়ে বা খাবার গ্রহণের মাধ্যমে মোটা হওয়ায় সবচেয়ে শ্রেয়। অন্যান্য পন্থা অবলম্বন করলে একটু ঝুঁকি থেকেই যায়। তাই যথাযথ খাবার গ্রহণ করাই শ্রেষ্ঠ উপায়। এক্ষেত্রে কোন কোন খাবার গ্রহণ করতে হবে তা নিয়ে অনেকেই দ্বিধাদন্দে ভুগেন। 

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায় তার একটা নির্দিষ্ট তালিকা থাকলে কেমন হয়? এই আর্টিকেলে আমরা এমন দশটি খাবারের তালিকা তৈরি করবো যা আপনাকে মোটা হতে সহায়তা করবে। তাহলে চলুন, আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়া যাক। 

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায় :

বলা হয়, স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল। সুস্থ দেহে সুন্দর মন। সুস্বাস্থ্যের অধিকারী মানুষ মানসিকভাবেও বেশ চাঙ্গা থাকেন। তাই আমাদের সকলকেই স্বাস্থ্য সচেতন হতে হবে। 

একজন স্বাস্থ্য সচেতন মানুষ সবসময় তার খাদ্যতালিকায় নজর রাখেন। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় সুষম খাদ্য, শর্করা, আমিষ, কার্বো-হাইড্রেড সমৃদ্ধ খাবার তালিকাভুক্ত করেন। আমরাও চাইলে আমাদের প্রতিদিনের খাবারে এমন কিছু উপাদান যোগ করতে পারি যা আমাদের মোটা হতে সাহায্য করবে। তবে তার আগে যেসব খাবার খাবার খেলে মোটা হওয়া যায় তা আমাদের জানতে হবে।  

১. কিসমিসঃ

এটা হয়তো আপনাদের অনেকেরই অজানা যে মোটা হবার জন্য সবচেয়ে কার্যকরী খাবার হলো কিসমিস। কিসমিসে বিদ্যমান পুষ্টি উপাদান শরীরের শক্তি যোগাতে ও ওজন বাড়াতে সাহায্য করে৷ 

প্রতিদিন নিয়ম করে রাতে শোবার আগে একটি গ্লাসে কিসমিস ভিজিয়ে রাখুন। সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে সেগুলো খেয়ে নিন। ভিজানো পানিটাও সেইসাথে খেতে পারেন। এভাবে নিয়মিত এক/দুই মাস খেলে দেখবেন আপনার শরীরের ওজন আগের চেয়ে অনেক বেড়ে গেছে। এবং শরীর আগের চেয়ে অনেক সুন্দর ও শক্তিশালী হবে। 

২. খিচুড়িঃ

খিচুড়িতে বিদ্যমান কার্বোহাইড্রেড ও প্রোটিন মোটা হতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। খিচুড়ি তৈরির অপরিহার্য উপকরণ ডালে রয়েছে প্রচুর পরিমান ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, খাদ্য আঁশ ও আ্যামাইনো এসিড। এবং খিচুড়ির সাথে অল্পকিছু সবজি মিশিয়ে যদি রান্না করা যায় তবে এটি পরিপূর্ণ ব্যালেন্সড খাবারে পরিণত হয়। তাই প্রতিদিন সকালে খিচুড়ি খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন। 

আরো পড়ুন- ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার সমূহ এবং এর উপকারিতা জেনে নিন!

৩. সেদ্ধ আলুঃ

আমরা কমবেশি সবাই জানি যে সেদ্ধ আলু শরীরের ওজন বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। আলুতে শর্করা, তন্ত, খনিজ লবণ, ভিটামিন ও উদ্ভিজ্জ প্রোটিন রয়েছে। এই খাবারটি বিভিন্ন খাবারের সাথে মিশিয়ে রান্না করা যায়। তাই প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় আলুর গুরুত্ব দিতে হবে। এছাড়া আলু ভর্তা বা প্রতিদিন যদি দুটো করে সেদ্ধ আলু খেতে পারেন তবে অনেক উপকৃত হবেন। 

৪. বিরিয়ানিঃ

হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। বিরিয়ানি মোটা হতে সাহায্য করে। যদিও এটি একটি খরচসাপেক্ষ ব্যাপার তবে আপনি সময় সুযোগ পেলেই বিরিয়ানি খাবার অভ্যাস করতে পারেন। প্রতি দুই/তিন অন্তর বিরিয়ানি খেতে পারলে এক/দেড় মাস পর পার্থক্যটা আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন। 

৫. গরুর মাংসঃ

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায় তার মধ্যে অন্যতম একটি খাবার হলো গরুর মাংস। মানবদেহের জন্য প্রয়োজনীয় ফ্যাটি এসিড, ভিটামিন ও খনিজ লবণ গরুর মাংসে পাওয়া যায়। যা ওজন বাড়াতে ও স্বাস্থ্যবান হতে সাহায্য করে। 

আমরা মোটামুটি সবাই মনে করি যে গরুর মাংস একটি ক্ষতিকর খাবার, যা এড়িয়ে চলা উচিত। আসলে এড়িয়ে চলা বলতে, কম মাত্রায় খাওয়া প্রয়োজন। স্বাভাবিক টুকরোর দু’তিন টুকরো খাওয়া যেতে পারে, এটি গরুর মাংস খাওয়ার সাধারণ মাত্রা।  

৬. ডিম – যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়

প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ডিম থাকাটা খুবই উপকারি। এবং আপনি যদি ওজন বাড়াতে চান তাহলে ডিম খাওয়াটা অপরিহার্য। ডিমে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন রয়েছে। শরীরের ওজন বাড়াতে প্রোটিন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এছাড়া ডিমের কুসুমে বিদ্যমান প্রয়োজনীয় ক্যালারি আপনার শরীরের ওজন বাড়াতে খুবই সহায়ক। 

আরো পড়ুন- হাঁসের ডিমের উপকারিতা | পুষ্টিগুণ | ত্বকের যত্নে হাঁসের ডিম!

৭. ঘী এবং মাখনঃ

ওজন বাড়াতে চাইলে স্নেহজাতীয় খাবার গুরুত্বপূর্ণ। এবং স্নেহজাতীয় খাবারের মধ্যে মাখন ও ঘী অন্যতম। মাখন ও ঘী-তে রয়েছে প্রচুর ক্যালারি৷ যা আপনার শরীরকে প্রয়োজনীয় পুষ্টি যোগায়। তবে অতিরিক্ত ঘী ও মাখন খেলে হার্টের ক্ষতি হতে পারে, তাই পরিমাণমতো খান। 

৮. বাদাম – যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়

ওমেগা- থ্রি, ফ্যাটি এসিড, ক্যালারি, ফাইবার, প্রোটিন এবং ভিটামিন-ই সমৃদ্ধ খাবার হলো বাদাম। এটি আপনার শরীরের ওজন বাড়াতে কার্যকরি ভূমিকা রাখে৷ তাই সময় করে বাদাম খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন। 

৯. ভাত – যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়

যে খাবার খেলে মোটা হওয়া যায় তার মধ্যে সবচেয়ে পরিচিত খাবার হচ্ছে ভাত। ভাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ কার্বো-হাইড্রেড। সমাজ সংস্কৃতির কারণে আমাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় ভাত থাকেই। এটি একটি ভালো দিক। তবে সবচেয়ে ভালো হয় যদি ভাতের ফ্যান নিয়ম করে খেতে পারেন। অনেক অঞ্চলে এটিকে মাড় বলে। 

১০. প্রচুর শাকসবজিঃ

দেহের ওজন বাড়াতে ও সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে শাকসবজির বিকল্প নাই। তাই শাকসবজির প্রতি অনীহা থাকলে চলবে না। ওজন বাড়াতে চাইলে আমাদের প্রতিদিন বেশি বেশি করে শাকসবজি খেতে হবে। 

উপসংহারঃ

 উপরে উল্লিখিত খাবারগুলি ব্যতীত আরো অনেক খাবার রয়েছে যেগুলো ওজন বাড়াতে সাহায্য করে। যেমন; চিকেন ফ্রাই, যেকোনো ধরনের ভাজা খাবার, পাউরুটি ইত্যাদি। এবং নানারকম ফলের রস, পেস্তা, নুডুলস ইত্যাদিও ওজন বাড়াতে অনেক উপকারি। তাই আপনি যদি মোটা হতে চান তবে এই খাবারগুলি আপনার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় তালিকাভুক্ত করে ফেলতে পারেন।

আরো পড়ুন-

শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top