লবঙ্গ বা লং এর ১০টি উপকারিতা জেনে নিন!

লবঙ্গ বা লং এর উপকারিতা – ইন্দোনেশিয়া, ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ, এমনকি পূর্ব আফ্রিকার অঞ্চলগু্লো তে ও লবঙ্গ বহুল ব্যবহারিত একটি মসলা। লবঙ্গ এমন একটি মশলা যা বহু স্বাস্থ্য উপকার সরবরাহ করে।

এটির স্বাস্থ্য সুবিধার মধ্যে হজম সহায়তা, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি এবং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ অন্তর্ভুক্ত । লবঙ্গে মৌখিক রোগ এবং মাথা ব্যথার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের পাশাপাশি অ্যান্টি-মিউটেজেনিক এবং অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্যও রয়েছে। লং বা লবঙ্গ খাওয়ার উপকারিতা অনেক গুলো স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে। চলুন বিস্তারিত জেনে নি।

লবঙ্গ পুষ্টির তথ্য

লবঙ্গ হাজার হাজার বছর ধরে ভারত এবং চীনে কেবল মশলা হিসাবেই নয়, বহু রোগের ওষুধ হিসাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ইউএসডিএ ফুডডাটা সেন্ট্রাল  অনুসারে লবঙ্গ বা লং এর উপকারিতা ও প্রাপ্ত পুষ্টিগুলির মধ্যে রয়েছে শর্করা , প্রোটিন , এবং ডায়েটি ফাইবার । লবঙ্গ এর খনিজগুলির মধ্যে পটাসিয়াম , ক্যালসিয়াম , সোডিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম অন্তর্ভুক্ত । এগুলির মধ্যে পাওয়া ভিটামিনগুলির মধ্যে রয়েছে ভিটামিন ই , ফোলেট এবং নিয়াসিন । 

এগুলিতে ফসফরাস , আয়রন , দস্তা , ভিটামিন সি , থায়ামিন, রাইবোফ্লেভিন এবং ভিটামিন এ এবং কে রয়েছে। 

লং বা লবঙ্গের পুষ্টির মান 
  • ১০০ গ্রাম লবঙ্গটিতে ২৮৬ কিলোক্যালরি শক্তি থাকে
  •  ৪.৭৬ গ্রাম প্রোটিন 
  • ১৪.২৯ গ্রাম ফ্যাট 
  • ৬৬.৬৭ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট 
  • ৩৩.৩ গ্রাম ফাইবার 
  • ৪৭৬ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম 
  • ৮.৫৭ মিলিগ্রাম আয়রন 
  • ১৯০ মিলিগ্রাম ম্যাগনেসিয়াম 
  • ১০০০ মিলিগ্রাম পটাসিয়াম 
  • ২৮৬ মিলিগ্রাম সোডিয়াম

লবঙ্গের স্বাস্থ্য উপকারিতা

লবঙ্গ বা লং এর উপকারিতা

মাথা ব্যথার চিকিত্সা

লবঙ্গ ব্যবহার করে মাথা ব্যথা দূর যেতে  পারে । কয়েকটি লবঙ্গ একটি রুমাল বা কাপড়ে নিয়ে আগুনের তাপে গরম করে নিন। ধোঁয়া বের না হওয়া পর্যন্ত গরম করুন। তারপর কয়েক মিনিট এটির ঘ্রাণ নিন। দেখবেন কিছুক্ষণের মধ্যেই মাথা ব্যথা চলে যাবে। আরো পড়ুনঃ মাথা ব্যথার কারণ সমূহ এবং এর প্রতিকার

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

লবঙ্গগুলি ভিটামিন সি-এর একটি ভাল উত্স, একটি জল-দ্রবণীয় অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট যা রোগজীবাণু এবং অক্সিডেটিভ স্ট্রেসের বিরুদ্ধে বাধা হিসাবে কাজ করে প্রতিরোধে অবদান রাখে। 

মৌখিক স্বাস্থ্য উন্নত করে 

 লবঙ্গ তে অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা মুখের ফলক এবং অন্যান্য রোগের তীব্রতা হ্রাস করতে সহায়তা করে। একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে লবঙ্গগুলো মাড়ির রোগে অবদান রাখার জন্য চার ধরণের ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি বন্ধ করতে পারে।

ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ করে

লবঙ্গে ইউজেনলের উপস্থিতি রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারে। এই যৌগটি ইনসুলিনের নিঃসরণকে উন্নত করতে পারে, গ্লুকোজ সহনশীলতা এবং বিটা কোষের কার্যকারিতা উন্নত করতে পারে, ফলে রক্তের গ্লুকোজ স্তর হ্রাস করে।

হজমশক্তি বৃদ্ধি করে 

 লবঙ্গ বা লং এর উপকারিতা তে অনেকগুলি বায়োঅ্যাকটিভ যৌগ রয়েছে যা হজম এনজাইমগুলির নিঃসরণকে উদ্দীপিত করে এবং হজম প্রক্রিয়াটিকে ত্বরান্বিত করতে সহায়তা করে। লবঙ্গ পেটের অম্লতা, গ্যাস এবং বমি বমি ভাব হ্রাস করতে সহায়তা করে।

টিউমার রোধে লবঙ্গ

একটি গবেষণায় লবঙ্গের ইথাইল অ্যাসিটেট নিষ্কাশনের অ্যান্টি-টিউমার কার্যকলাপ দেখানো হয়েছে। লবঙ্গতে থেরাপিউটিক বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা ক্যান্সারের চিকিত্সায় ও সহায়তা করতে পারে।

ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করে

লবঙ্গে উচ্চ ফ্যাটযুক্ত ডায়েটের ফলে স্থূলত্বের সূত্রপাত কমিয়ে আনতে পারে। লবঙ্গ সেবন পেটের চর্বি, শরীরের ওজন কম এবং লিভারের ফ্যাট হ্রাস করতে সহায়তা করে। আরো পড়ুনঃ BMI কি? আপনার উচ্চতা অনুযায়ী সঠিক ওজন জানুন!

হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে 

লবঙ্গ ম্যাঙ্গানিজ, ক্যালসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়ামের একটি দুর্দান্ত উত্স যা হাড় গঠনে সহায়তা করে এবং হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি করে। এছাড়াও, লবঙ্গ তে ইউজেনলের উপস্থিতি হাড়ের ঘনত্ব এবং শক্তি বৃদ্ধিতে কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে। 

শ্বাস প্রশ্বাসের উন্নতি

লবঙ্গ বিভিন্ন শ্বাস প্রশ্বাসের স্বাস্থ্য সমস্যার যেমন ব্রঙ্কাইটিস, হাঁপানি, সর্দি এবং কাশি তে ব্যবহার করা যেতে পারে। এটি মূলত লবঙ্গতে প্রদাহ বিরোধী গুণাবলীর কারণে যা শ্বাস নালীর মধ্যে প্রদাহ হ্রাস করতে সহায়তা করে।

তাই বলা যায় যে  আমাদের শরীরের জন্য লবঙ্গ বা লং এর উপকারিতা অত্যধিক। প্রতিদিনের খাবারে মসলা হিসেবে ব্যবহারেও এটি আমাদের নানা রকম রোগ প্রতিরোধে সহায়ক ভুমিকা পালন করে।

ট্যাগঃ লং এর উপকারিতা, লং বা লবঙ্গ খাওয়ার উপকারিতা, প্রোটিন, শর্করা, ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, সোডিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন ই, ফোলেট,

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *