হাড়ের ব্যথা দূর করার উপায়

হাড়ে ব্যথা হওয়ার কারণ ও হাড়ের ব্যথা দূর করার উপায় জেনে নিন!

হাড়ের ব্যথা দূর করার উপায় – মানবদেহে সাধারণত ক্যালসিয়ামের ঘাটতির ফলে ব্যথা শুরু হয়। হাড়ের ব্যথা হলে রোগীকে বিভিন্ন রকম সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। তার মধ্যে প্রাথমিক যে লক্ষণ গুলো প্রকাশ পায় তা হলো হাড় কনকন করা, পিঠে প্রচন্ড ব্যথা অনুভব করা, পা ফুলে যাওয়া ইত্যাদি। 

হাড়ে ব্যথা হওয়ার কারণ সম্পর্কে অনেকেই আমরা ভালোমতো জানি না। তাই এ সমস্যা নিয়ে অনেককেই দুশ্চিন্তাই পড়তে হয়। আজকে আমরা হাড়ের ব্যথা দূর করার উপায় কি সে সম্পর্কে আলোচনা করবো। এখান থেকে আপনারা থেকে আশা করি হাড়ের ব্যথা হওয়ার কারণ ও তার প্রতিকার সম্পর্কে জানতে পারবেন। 

হাড়ের ব্যথার কারণ

বর্তমান সময়ে অস্বাভাবিক হাড়ে ব্যথা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। চলুন জেনে নেওয়া যাক এর কারণ গুলোর কী কী৷ 

  • মানবদেহে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি হলে হাড় ব্যথা ও হাড়ের ক্ষয় হতে পারে।
  • হাড় ভঙ্গুর রোগ অস্টিওপরোসিস ও অস্টিওপেনিয়ার কারণে হাড় ব্যথা হতে পারে।
  • হাড়ে ক্যান্সার হওয়ার ফলে আপনার হাড় ব্যথা করতে পারে।
  • রক্ত চলাচলে বাধা পেলে হাড়ে ব্যথা হয়।

>> কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায় জেনে নিন!

হাড়ের ব্যথা দূর করার উপায়

বেশিরিভাগ ক্ষেত্রে হাড়ের ব্যাথার চিকিৎসা দীর্ঘমেয়াদী হয়ে থাকে। এবং এতে যে ধরণের ব্যথার ঔষধ খেতে হয় সেগুলো অন্যান্য শারীরিক সমস্যার কারণ হয়ে থাকে। আমরা এখানে কয়েকটি ঘরোয়া উপায়ের কথা বলব যেগুলো অনুসরণ করে আপনি বেশ ভাল ফল পেতে পারেন। 

  • হাড়ে বা জয়েন্টের ব্যথায় অলিভ অয়েল ম্যাসাজ করুন। এটি প্রাকৃতিকভাবে আপনার ব্যথা কমিয়ে দেবে। প্রতিদিন দুইবার ভালভাবে ম্যাসেজ করার পরে সঙ্গে সঙ্গে তেলটি ধুয়ে ফেলবেন না। বরং এটিকে বেশ কিছু সময় রেখে দিন যেন ত্বক এই তেলটাকে শোষণ করতে পারে।
  • কিছু খাবার আছে যেগুলো প্রদাহ বিরোধী, এগুলো ব্যথা কমাতে সহায়তা করে, যেমন মটরশুটি, বাদাম, হলুদ, মাছ, বাদামী চাল, ওটমিল ইত্যাদি। এই ধরণের খাবারগুলো বেশি বেশি খাওয়ার চেষ্টা করুন। পাশাপাশি কিছু খাবার এড়িয়ে চলবেন, যেমন চিনি, লাল মাংস, দুগ্ধজাত পন্য, ভাজাপোড়া ইত্যাদি। 
  • আমাদের খাদ্যাভ্যাসের কারণে শরীর অনেকসময় সবরকম পুষ্টি পর্যাপ্ত পরিমাণে পায় না। সেক্ষেত্রে মাঝে মাঝে বিভিন্ন ভিটামিন বা মিনারেল সাপ্লিমেন্ট প্রয়োজন হয়। হাড়ে ব্যথা থাকলে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ডি, ম্যাগনেসিয়াম, মাছের তেল ইত্যাদি সাপ্লিমেন্টগুলো অনেক বেশি উপকারে আসে।
  • হাড় এবং জয়েন্টে ব্যথা থাকলে নিয়মিত ব্যায়াম আপনাকে সমস্যাগুলো থেকে পরিত্রান পেতে সহায়তা করতে পারে। তাই প্রতিদিন নিয়মিত হালকা ধরণের ব্যায়াম করুন।
  • ব্যথার স্থানে গরম বা ঠান্ডা পানি ঢাললে সঙ্গে সঙ্গে ব্যথা থেকে আরাম পাওয়া যায়। যতটুকু গরম আপনি সহ্য করতে পারেন সেই তাপমাত্রার পানিতে সামান্য লবণ মিশিয়ে ব্যথার স্থানে ঢালুন। যদি পায়ে সমস্যা থাকে তাহলে পা ডুবিয়ে বসে থাকুন। অথবা ঠান্ডা পানিও ঢালতে পারেন।
  • অতিরিক্ত ওজন হাড় ব্যথার কারণ হতে পারে। আবার ব্যথা সারাতেও দেরি করাতে পারে। আপনার ওজন যদি অতিরিক্ত হয় তাহলে ওজন কমানোর চেষ্টা করুন।
  • গোসলের পানিতে দুই কাপ ইপসম লবণ মিশিয়ে নিন। এই লবনে ম্যাগনেসিয়াম থাকে যা ব্যথা কমাতে সহায়তা করে। বাথটব থাকলে লবন মেশানো পানিতে ৩০ মিনিট ধরে থাকতে পারেন।

হাড়ের ব্যথা প্রতিরোধে যা করবেন

হাড় ব্যথা প্রতিরোধে আপনাকে দৈনন্দিন চলাফেরায় সাবধান হতে হবে। সিঁড়িতে ওঠানামা, ঘরের মেঝে বা অন্য যে কোন স্থানে বিশেষকরে যদি সেটি পিচ্ছিল হয় হাটাচলায় সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। ফুটবল বা আঘাত পেতে পারেন এমন ধরনের খেলাধুলা বাদ দিন। পাশাপাশি আরো কয়েকটি কাজ করতে পারেন, যেমন-

শেষ কথা

শরীরে ব্যথা হলে মাঝে মাঝে আমরা বুঝতে পারি না এটি মাংসপেশীর ব্যথা নাকি হাড়ের। হাড়ের ব্যথা সাধারণত মাংসপেশীর ব্যথার চেয়ে গভীর, তীক্ষ্ণ ও তীব্র অনুভূত হয়। মাংসপেশীর ব্যথা এক থেকে দুই দিনেই অনেকসময় ভাল হয়ে যায়, কিন্তু হাড়ের ব্যথা অনেকসময় দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে। তাই হাড়ের ব্যথাকে সবসময় গুরুত্বের সাথে নেওয়া উচিত।

>> ঘাড় ব্যাথা হলে করণীয় কি জেনে নিন!

>> কৃষি বিষয়ক তথ্য দেখুন…

শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top