Norium 10

NORIUM 10 কিসের ঔষধ? চলুন জানি এর কার্যকারিতা ও অন্যান্য সব তথ্য!

Norium 10 হচ্ছে এস কে এফ  ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের একটি ট্যাবলেট। এই ট্যাবলেট এর জেনেরিক নাম ফ্লুনারিজিন। এটি মূলত মাইগ্রেন প্রতিরোধে এবং ভেস্টিবুলার ভার্টিগোর উপসর্গের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়ে থাকে। 

আজ আমরা জানব Norium 10  এর ব্যবহারবিধি কার্যকারিতা এবং আরো অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াবলী। চলুন শুরু করা যাক-

Norium 10 কোন রোগের ওষুধ  এবং এটি কেন খায়?

মূলত, বেশ কয়েকটি রোগের উপসর্গ ক্ষেত্রে এই নরিয়াম 10 ওষুধটি ব্যবহৃত হয়ে থাকে।  চলুন জেনে নেই কি কি রোগের উপসর্গ হলে আপনি এই ওষুধটি সেবন করতে পারবেন।

নরিয়াম 10  ওষুধটি অরা সহ এবং অরা ছাড়া মাইগ্রেনের প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করে। এছাড়াও, ভ্যাস্টিবুলার ভার্টিগাের, পেরিফেরাল ভাসকুলার ডিজিস্, এবং  ভ্রমণজনিত অসুস্থতার  ক্ষেত্রেও নরিয়াম 10 ঔষধটি সেব্য। 

Norium 10 ঔষধ খাওয়ার নিয়ম

অসুস্থতার উপসর্গ ভেদে নরিয়াম 10 ঔষধ এর সেবন প্রক্রিয়া ভিন্ন হয়ে থাকে-

  • মাইগ্রেন:  মাইগ্রেন প্রতিরোধের ক্ষেত্রে প্রারম্ভিক মাত্রা হচ্ছে 10 মিলিগ্রাম যা 65 বছরের কম বয়সী রোগীদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।  আবার 65 বছরের বেশি রোগীদের ক্ষেত্রে 5 মিলিগ্রাম করে সেব্য। 
  • পেরিফেরাল ভাসকুলার ডিজিজ:  এই রোগের উপসর্গের ক্ষেত্রে 10 মিলিগ্রাম করে দিনে দুইবার সর্বোচ্চ  30 মিলিগ্রাম পর্যন্ত দেওয়া যাবে  প্রয়োজনমতো।
  • মাথা ঘোরা এবং ভ্রমণ জনিত অসুস্থতা:  মাথা ঘোরা এবং ভ্রমণ জনিত অসুস্থতার ক্ষেত্রে একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের 10 থেকে 20 মিলিগ্রাম পর্যন্ত দেওয়া যেতে পারে।  এছাড়াও, 40 বছরের বেশি বয়স্ক একজন শিশুর জন্য 5 মিলিগ্রাম পর্যন্ত সেব্য। 
  • মৃগী জনিত খিচুনি সমস্যা:  খিঁচুনি সমস্যা দেখা দিলে একজন শিশুর ক্ষেত্রে 5 থেকে 10 মিলিগ্রাম পর্যন্ত এবং প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের ক্ষেত্রে 15 থেকে 20 মিলিগ্রাম পর্যন্ত ওষুধটি  প্রযোজ্য।

Norium 10 এর উপকারিতা

আমাদের শারীরিক সমস্যা সমাধানের ক্ষেত্রে বিভিন্ন উপকারের জন্য ঔষধ সেবন করে থাকি।  ঔষধের উপকারিতা সম্পর্কে জানা থাকলে আমাদের ঔষধ কি সমস্যার জন্য সেবন করতে হবে সে বিষয়টি অনেক সহজ হয়ে যায়। চলুন আমরা নরিয়াম 10  এর উপকারিতা সম্পর্কে জানি –

  • নরিয়াম 10  বেশ কয়েকটি রোগের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।
  • মাইগ্রেন জনিত সকল প্রকার সমস্যার ক্ষেত্রে এই ঔষধটি বিশেষভাবে কার্যকরী।
  • মাথা ঘোরা সমস্যা প্রতিরোধের এই ওষুধটি দীর্ঘমেয়াদে সমাধান প্রদান করে। 
  • পেরিফেরাল ভাসকুলার ডিজিজ  এর  প্রারম্ভিক এবং জটিল ক্ষেত্রেও নরিয়াম 10 প্রযোজ্য।
  • খিচুনি জনিত সমস্যা প্রতিরোধে এই ওষুধটি বিশেষভাবে সহায়তা প্রদান করে। 
  • এছাড়াও, ভ্রমণে যদি মাথা ঘোরা, মাথা ব্যথা জনিত সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে তাহলে নরিয়াম 10 বেশ কার্যকরী। 

Norium 10 এর অপকারিতা

নরিয়াম 10  সেবনে বেশকিছু অপকারিতা রয়েছে যাকে আমরা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া বলে থাকি। যেমন: 

  • বিষন্নতা এবং মুখের রুচি মাত্রাতিরিক্ত বৃদ্ধি পেতে পারে।
  • ক্লান্তি বেড়ে যাবে এবং ওজন বৃদ্ধি পেতে পারে।
  • কিছু এক্সট্রা পিরামিডাল পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে যেমনঃ ব্রাডিকিনেশিয়া, রিজিডিটি, একাথিসিয়া, ওরা ফেসিয়াল, ডিস্কিনেশিয়া, ট্রেমর ইত্যাদি। 

এছাড়াও কিছু অনিয়মিত পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে, যেমন:

  • বুক জ্বালা
  • পেশীতে ব্যথা
  • বমি বমি ভাব
  • ক্ষুধামন্দা
  • দুশ্চিন্তা
  • শুষ্ক মুখ
  • গ্যাস্ট্রলজির
  • ত্বকে লালচে ভাব
  • গ্যালাকটোরিয়া 

[বিঃ দ্রঃ  ডাক্তারের পরামর্শ ব্যতীত কোন ঔষধ সেবন যোগ্য নয়।  আপনার শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে ডাক্তার আপনাকে সঠিক  ঔষধটি সঠিক পরিমাপ প্রেসক্রাইব করবে।]

Norium 10 এর দাম কত?

নরিয়াম 10  এর প্রতিটি ট্যাবলেটের মূল্য ৭ টাকা করে।  ৬০ পিস ওষুধের এক প্যাকেটের মূল্য ৪২০ টাকা। 

Norium 10 প্রয়োগে সতর্কতা

নরিয়াম 10  সেবনের ক্ষেত্রে বেশ কিছু সতর্কতা মেনে চলা উচিত। 

  • এই ওষুধটি সেবনে তন্দ্রাচ্ছন্নতা তৈরি হতে পারে কারণ  এটি এলকোহল এবং অন্যান্য বিষন্নতা তৈরিকারী ওষুধের সংস্পর্শে বৃদ্ধি পায়। তাই অবশ্যই সেবনকৃত রোগীকে যানবাহন চালানো থেকে বিরত থাকতে হবে। 
  • এই ঔষধ সেবন কালে যেকোনো ধরনের ঝুঁকিপূর্ণ এবং বিপদজনক কাজ থেকে দূরে থাকতে হবে। 
  • বয়স্ক রোগীরা বিভিন্ন ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্মুখীন হতে পারে। 
  • অতিরিক্ত মাইগ্রেনের সমস্যা দেখা করলে ওষুধের মাত্রা বাড়ে না দিয়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। 
  • গর্ভবতী এবং স্তন্যদানকারী মহিলাদের ক্ষেত্রে Norium 10 প্রযোজ্য নয়। 
  • Norium 10 অতিরিক্ত সংবেদনশীল রোগীদের জন্য প্রযোজ্য। এটি কখনোই শিশুদের জন্য উপযুক্ত নয়। 
  • বিশেষত, বয়স্ক রোগীদের জন্য এই ওষুধটি প্রযোজ্য। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ ব্যতীত এই ঔষধটি সেবন করা যাবে না। 

অন্যান্য ওষুধের সাথে Norium 10 এর বিক্রিয়া 

অনেকক্ষেত্রে দেখা যায় আমরা বিভিন্ন ধরনের ওষুধ নিয়মিত সেবন করে থাকি আমাদের শারীরিক সমস্যার কারণে।  ভিন্নমাত্রার ওষুধ একত্রে সেবনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন রকমের বিক্রিয়ার সৃষ্টি হতে পারে।  তাই অন্যান্য ওষুধের সাথে Norium 10 এর কি বিক্রিয়া সৃষ্টি হতে পারে সে সম্পর্কে জানা খুবই জরুরী-

  • যেসব মহিলারা জন্মবিরতিকরণ পিল সেবন করছেন তাদের ক্ষেত্রে একটি জটিলতা দেখা দিতে পারে। Norium 10  জন্মবিরতিকরণ পিলের সাথে সেবন করলে প্রথম ২ মাসের ভিতর গ্যালাকটোরিয়া দেখা দিতে পারে।  তাই এই বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। 
  • যকৃতের কিছু উৎসেচক বৃদ্ধিকারী ওষুধ কার্বামাজেপিন এবং ফিনাইটয়েন।  এই দুটি ঔষধ নরিয়াম এর বিপাক বৃদ্ধি করতে পারে। 

সংরক্ষণ পদ্ধতি

Norium 10  সংরক্ষণের ক্ষেত্রে কিছু সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে। যেমন: 

  • সর্বনিম্ন ৩০ ডিগ্রি তাপমাত্রার নিচে ঔষধটি সংরক্ষণ করতে হবে। 
  • Norium 10  আলো এবং আর্দ্রতা থেকে দূরে রাখতে হবে। 
  • অবশ্যই শিশুদের নাগালের বাইরে রাখতে হবে। 

শেষ কথা

Norium 10 একটি বহুল পরিচিত এবং কার্যকরী ট্যাবলেট যা ভিন্ন ভিন্ন কিছু মারাত্মক রোগের প্রতিষেধক হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। আমরা ইতিমধ্যেই এই ট্যাবলেট এর কার্যকারিতা এবং সেবন বিধি সম্পর্কে জেনে গেছি। এছাড়াও, কি কি ক্ষেত্রে আমরা এই ওষুধ সেবন করতে পারি এবং কি কি ক্ষেত্রে পারিনা সে সম্পর্কে অবগত হয়েছি। 

অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ ব্যতীত এই ওষুধ ব্যবহার করা যাবে না এবং সকল সর্তকতা অবলম্বন করে সঠিক পরিমাণে ওষুধ সেবনে অব্যাহত থাকতে হবে। যেকোনো রকম জটিলতা দেখা দিলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

আপনার মনে কোন প্রশ্ন থাকলে এখানে ক্লিক করুন!

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top