ক্যারিবিয়ান অধিনায়কের আক্ষেপ একটা-ই!

ক্যারিবিয়ানরা সিরিজের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৬ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে। তাদের ব্যাটসম্যানরা বড় কোনো পার্টনারশিপ গড়ে তুলতে পারিনি যার আক্ষেপে বিধ্বস্ত  ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদ ।

বিস্তারিতঃ

টাইগারদের দুর্দান্ত বোলিং এর সামনে সোজা হয়ে দাঁড়াতেই পারেনি ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান-রা। মোস্তাফিজুর রহমানের দুর্দান্ত সূচনায়, দলীয় ২৪ রানের মাঝেই সাজঘরে ফিরেন  ডি সিলভা এবং  সুনীল এমব্রিস।

এরপর নিজের প্রত্যাবর্তনটা স্মরণীয় করে রাখলেন সাকিব আল হাসান। তিনি আন্দ্রে ম্যাকার্থি,বোনার এবং জেসন কে সাজঘরে ফেরান।

মাত্র ৫৬ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বিশাল ধাক্কা খায় ক্যারিবীয়রা। তবে সেখান থেকে রভম্যান পাওয়ালে এবং কাইল মায়ার্স ৫৯ রানের জুটি গড়ে পরিস্থিতি কিছুটা সামাল দেয়।  

মায়ার্স ৪০ রানে এবং পাওয়েল ২৮ রানে ফিরে গেলে কেউই আর নিজেদের মেলে ধরতে পারে নি।  অবশেষে ১২২ রানে থামতে হয়েছে  ক্যারিবিয়ান-দের।অধিনায়ক মোহাম্মদ মনে করেন তাদের দুজনের মতো আরো কিছু জুটি দরকার ছিল  ওয়েস্ট ইন্ডিজের।

আরো পড়ুন-

এ প্রসঙ্গে ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক  বলেন, ‘ আমি মনে করি এটি হতাশার একটি দিন ছিল। আমাদের শুরুটা মোটেও সহজ ছিল না, তবে পার্টনারশিপ করার জন্য আমাদের পর্যাপ্ত ব্যাটসম্যান শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে পারে নি।অনেকে শুরুটা ভালো করার পরও শেষ করে আসতে পা্রে নি।  আমরা যখন চাপে ছিলাম কখন একটি দূর্দান্ত পার্টনারশিপ হয়েছিল। কিন্তু আমাদের আরও পার্টনারশিপের  দরকার ছিল।’

বেশি রান করতে না পারলেও বাংলাদেশের উপর কিছুটা চাপ তৈরি করেছিলেন  ক্যারিবিয়ান বোলার-রা।  দীর্ঘদিন উইকেট এর কারণে ব্যাটসম্যান-দের জন্য কঠিন ছিল দিনটি। অবশ্য স্পিনার আকিব হোসেনের প্রশংসা করেছিলেন ক্যারিবিয়ান  অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদ ।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, ‘ ক্রিকেটের জন্য এই জায়গাটি বেশ কঠিন।  উইকেট  স্পিনিং এবং  ধীর গতির ছিল। আমরা  বড় সংগ্রহ করতে না পারলেও,  এটা করেছে চাপ সৃষ্টি করতে এবং প্রতিপক্ষকে আউট করতে। আজকে আকিল ছিল অসাধারণ, সে দারুণ খেলেছে।’

আরো পড়ুন-

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *