প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায় – ৪১ ফেয়ারনেস টিপস

প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায় : ঘরোয়া প্রতিকারের মাধ্যমে ঘরে কীভাবে ফর্সা ত্বক পাবেন?  আসলেই কি প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার কোন উপায় আছে? আমাদের আজকের আলোচনার বিষয়বস্তু এটি। আজ আমরা প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার ৪১ টি উপায় নিয়ে বিস্তারিত কথা বলবো।

প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায় – ৪১ ফেয়ারনেস টিপস

১. লেবু

আপনার ত্বকের স্বর হালকা করতে আপনার মুখে প্রতিদিন অর্ধেক লেবু স্ক্রাব করুন। লেবু একটি দুর্দান্ত ব্লিচিং এজেন্ট, এবং এটি মুখের দাগগুলি দূর করতে খুব সহায়ক। ঘরে ফর্সা ত্বক পাওয়ার জন্য এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ব্যবহার করে দেখুন।

২. আলু

একটি পাত্রে আলুর রস নিন এবং আপনার ত্বকে এটি আপনার মুখে এটি ভাল্ভাবে লাগিয়ে নিন। এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ব্যবহারের পরে আপনার ত্বক ধীরে ধীরে ফর্সা হয়ে উঠবে।

৩. টমেটো – প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায়

আপনার ত্বকে গোলাপি রঙের আভা দেওয়ার জন্য আপনার ত্বকে টমেটো ব্যবহার করুন। টমেটো আপনাকে ফর্সা ত্বকের স্বর দেওয়ার জন্য খুব ভাল। টমেটো এর ঘরোয়া প্রতিকার আপনার মুখের খোলা ছিদ্রগুলি দূর করে আপনার মুখের অতিরিক্ত তেল শোষণ করে।

৪. লেবু রস ও মধু

লেবুর রস ও মধুর ঘরোয়া উপায়ে সম পরিমাণে ত্বকে লাগিয়ে ফর্সা ত্বক পাবেন। এটি হলো প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায়।

৫. দারুচিনি ও মধু

এক চিমটি দারুচিনি দিয়ে আধ চা চামচ মধু নিন; ঘরে ফর্সা ত্বক পেতে আপনার মুখে লাগান।

৬. লেবু ও শসা – প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায়

 আপনার ত্বক হালকা করতে লেবুর রসের সাথে শসার রস প্রয়োগ করুন। তৈলাক্ত ত্বক ফর্সা করার জন্য এই ঘরোয়া প্রতিকারটি খুব উপকারী।

৭. দই

ফর্সা এবং নরম ত্বক পেতে আপনার ত্বকে দই লাগান। দই দস্তা এবং ল্যাকটিক অ্যাসিডের একটি ভাল উত্স, উভয়ই ত্বকের স্বরকে হালকা করতে সহায়তা করে। ফর্সা ত্বক পাওয়ার জন্য দই একটি দুর্দান্ত ঘরোয়া উপায়।

৮. নারকেল পানি

ঘরে ঘরে ফর্সা ও ত্রুটিহীন ত্বক পেতে নারকেল পানি প্রয়োগ করুন। এই ঘরোয়া প্রতিকারটি চিকেন পক্সের দাগও হালকা করতে সহায়ক।

৯. বাদাম তেল

ফর্সা এবং নরম ত্বক পেতে আপনার ত্বকে বাদাম তেল দিয়ে মালিশ করুন, আরও ভাল ফলাফল পেতে আপনি এক চিমটি জাফরান যুক্ত করতে পারেন। আপনি বাড়িতে বাচ্চাদের জন্যও এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ব্যবহার করতে পারেন।

১০. গুড়ো দুধ, লেবু, তেল মিশ্রণ প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায়

১ চামচ দুধের গুঁড়া, ১ চামচ লেবুর রস এবং ১ চামচ বাদাম তেল মিশ্রণ করুন। আপনার ত্বকে এই কনককশনটি প্রয়োগ করুন; এটি ধুয়ে ফেলার আগে ১৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন। এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ঘরে ফর্সা ত্বক পাওয়ার ক্ষেত্রে দুর্দান্ত ফলাফল দেয়।

১১. মধু ও শসা- প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায়

শুকনো ত্বক ফর্সা করার জন্য মধুর সাথে শসার রসের মিশ্রণের ঘরোয়া প্রতিকার খুব কার্যকর। এটি প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায়

১২. ডিমের সাদা অংশ

সাদা ত্বক পেতে সপ্তাহে দু’বার ডিমের সাদা মুখ লাগান। বাড়িতে আপনার তৈলাক্ত ত্বক ফর্সা করতে হলে এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ব্যবহার করুন।

১৩. ফেসপ্যাক

ঘরে ফর্সা ত্বক পেতে ফেসপ্যাক তৈরি করতে টমেটোর সাথে ওটমিল, দই মিশিয়ে নিন।

১৪. টমেটো ও লেবু রস- প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায়

একটি টমেটো এবং ৪-৫ ফোঁটা লেবুর রস দিন এবং ফর্সা ত্বক পেতে এই ঘরোয়া প্রতিকারটি আপনার ত্বকে লাগান।

১৫. ফেসপ্যাক ২

পেঁপে, মধু, দুধ এবং দুধ শক্তি মিশ্রন করুন এবং তাত্ক্ষণিক সুন্দর মুখ পেতে আপনার ত্বকে এই ঘরোয়া প্রতিকারটি প্রয়োগ করুন। তৈলাক্ত ত্বকের জন্য এই প্রতিকারটি ভাল।

১৬. ফেসপ্যাক ৩

ফর্সা ত্বক পেতে বাদাম তেল মিশ্রিত চন্দন কাঠের পেস্ট প্রয়োগ করুন। এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ঘরে ফর্সা ত্বক পাওয়ার জন্য ভাল ফেসিয়াল।

১৭. দুধ ও বাদাম

কাঁচা দুধে বাদাম সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন এবং আপনার ত্বকে লাগানোর জন্য এটি পিষে নিন। এটি আপনাকে সুন্দর ত্বকের সুর দেওয়ার ক্ষেত্রে একটি দুর্দান্ত ঘরোয়া উপায়।

১৮. কাঁচা দুধের ব্যবহার

আপনার ত্বকে কাঁচা দুধ ব্যবহার করা আপনার ত্বকের সুরকে হালকা করে। ফর্সা ত্বক পেতে আপনি আপনার বাচ্চাদেরও এই প্রতিকারটি ব্যবহার করতে পারেন।

১৯. জাফরান – প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায়

আপনার মুখ কাঁচা দুধ দিয়ে পরিষ্কার করুন যাতে একটি চিমটি জাফরান যুক্ত করা হয়। প্রতিদিন ঘরে ঘরে সুস্পষ্ট ও পরিষ্কার ত্বক পেতে তুলার প্যাডগুলি সহ এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ব্যবহার করুন।

২০. জলপাই তেল

ফর্সা এবং নরম ত্বক পেতে আপনার ত্বকে জলপাইয়ের তেল দিয়ে মালিশ করুন, আরও ভাল ফলাফল পেতে আপনি এক চিমটি জাফরান যুক্ত করতে পারেন। আপনি বাড়িতে বাচ্চাদের জন্যও এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ব্যবহার করতে পারেন।

২১. ফেসপ্যাক ৪

 ফর্সা ত্বক পেতে ফেস প্যাক তৈরির জন্য ২ টেবিল চামচ ছোলা ময়দা (বেসন), ১ চামচ কাঁচা দুধ, ৬ ফোঁটা চুনের রস কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল দিয়ে নিন। এই ঘরোয়া প্রতিকার সকল ত্বকের জন্য ভাল। প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায় এটি দারুণ ভাবে কার্যকর।

২৩.  মসুর ডাল

দুধ বা দইয়ের সাথে মসুর (মসুর ডাল) প্রয়োগ করুন। এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ফর্সা চেহারা এবং শরীরের জন্য খুব ভাল ফেস প্যাক। ১৫ দিনের মধ্যে ফলাফল পেতে এটি প্রতিদিন ব্যবহার করুন।

২৪. কমলার খোসা

 শুকনো কমলার খোসার টুকরো দুধ বা দইয়ের সাথে মিশিয়ে নিয়েত্বকে মেসেজ করুন।

২৫. মুলার ব্যবহার

 পানিতে মুলা সিদ্ধ করুন এবং ঘরে এই ফর্সা ত্বক পেতে এই জলটি মুখে লাগান।

২৬. ফেসপ্যাক ৫

কাঁচা দুধে ৪ টি বাদাম দিয়ে কালো ছোলা  ভিজিয়ে রাখুন এবং সকালে এটি পিষে নিন। যদি প্রতিদিন ব্যবহার করা হয় তবে কয়েক দিনের মধ্যে আপনার ত্বককে হালকা করার জন্য দুর্দান্ত ফলাফল পেতে এই ত্বকে এই প্যাকটি প্রয়োগ করুন। এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ঘরে ফর্সা ত্বক পাওয়ার ক্ষেত্রে দুর্দান্ত।

২৭. লেবু ও পুদিনা

আধা চামচ লেবুর রসের সাথে ২ চামচ পুদিনার রস মিশিয়ে নিন। ত্বকের সুন্দর ত্বক পেতে এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ব্যবহার করুন; এই প্যাকটি হোয়াইটহেডগুলি ছিটকে দেওয়ার পাশাপাশি ত্বককে এক্সফোলিয়েট করে।

২৮. আনারস

বাড়িতে প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা ত্বক পেতে পাকা আনারসের রস প্রয়োগ করুন।

২৯. দই ও শসার ব্যবহার

আপনার ত্বকে লাগানোর জন্য দইয়ের সাথে শসা মিশ্রিত করুন এবং দেখুন কয়েক দিনের মধ্যে আপনার ত্বক আরও সুন্দর হয়ে উঠেছে।

৩০. গোলাপ জল

 ফুলের পৃথিবীর ঘরোয়া প্রতিকার (মুলতানি মিট্টি) গোলাপজল মিশিয়ে তৈলাক্ত ত্বকের জন্য ত্বককে হালকা করে তোলে।

৩১. পেপে ও তরমুজ

 তৈলাক্ত ত্বকের জন্য বাড়িতে ফর্সা ত্বক পেতে ফেয়ারনেস ফেস প্যাক তৈরি করতে পেঁপের সাথে তরমুজ মিশিয়ে নিন।

৩২. মজাদার ত্বক পেতে মধু ও লেবুর সাথে হলুদ লাগান।

৩৩. আপনি মধুর সাথে মদের সাথে অ্যালকোহলের এই দুর্দান্ত ঘরোয়া প্রতিকারটি ব্যবহার করতে পারেন ফর্সা ত্বক পেতে।

৩৪. ফেসপ্যাক ৬

 আপনার ত্বককে ফর্সা করার পাশাপাশি ফেস ক্যাক তৈরির জন্য ১ ডিমের কুসুম, ১ চামচ দই, ১ চামচ ফুলার পৃথিবী, ১ চামচ মধু মিশ্রণ করুন। এই ঘরোয়া প্রতিকার ঘরে ফর্সা ত্বক পেতে সহায়তা করে ।

৩৫. লেবু ও চিনি

আপনার মুখ স্ক্রাব করতে একটি লেবুর রস দিয়ে ২ চামচ চিনি নিন। যতক্ষণ না চিনির দানাগুলি গলে না যায় ততক্ষণ আপনার মুখ স্ক্রাব করুন। সুন্দর এবং নরম ত্বক পেতে এটি আপনার মুখ, ঘাড়, কনুই, পায়ে ব্যবহার করুন। আপনার মুখে পিম্পল থাকলে এটি করবেন না কারণ স্ক্রাবিংয়ের প্রক্রিয়াতে পিম্পলগুলি ফেটে যাবে। এই ঘরোয়া প্রতিকারটি আপনাকে ফর্সা এবং মসৃণ ত্বক পেতে সহায়তা করে।

৩৬. ফর্সা ত্বক পেতে ত্বকে গোলাপজল স্প্রে করুন।

৩৭. মধু ও দই

মধুর সাথে দইয়ের ঘরোয়া প্রতিকার হ’ল ত্বককে হালকা করে। এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ১৫ দিনের মতো সুন্দর ত্বক পাওয়ার আগে কখনও ব্যবহার করেন না।

৩৮. লেবু ও দই

লেবুর সাথে দইয়ের ঘরোয়া প্রতিকার আপনাকে ফর্সা এবং রেশমী ত্বক দেওয়ার জন্য ভাল কাজ করে।

৩৯. টমেটো ও দই – প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায়

 ​​টমেটোর সাথে দই আপনাকে দুর্দান্ত ফল দেয়, যদি আপনি এটি প্রতিদিন ঘুমানোর আগে ব্যবহার করেন। ঘরে ফর্সা ত্বক পাওয়ার জন্য এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ব্যবহার করে দেখুন।

৪০. নারকেল তেল – প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায়

নারকেল তেল আপনাকে হালকা ত্বক দিতে সহায়ক।

৪১. মধু ও দুধের গুড়ো

মধু সহ দুধের গুঁড়োয়ের ঘরোয়া প্রতিকার আপনার ত্বককে হালকা করে তোলে এবং শুকনো ত্বকের সূক্ষ্ম লাইনগুলি সহজ করে দেয়।

আরো পড়ুন-

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *