উচ্চতা বৃদ্ধির উপায়

উচ্চতা বৃদ্ধির বা লম্বা হওয়ার উপায় সমূহ জেনে নিন!

উচ্চতা বৃদ্ধির উপায় – লম্বা হতে কে না চায়? সকলের মনেই ইচ্ছা জাগে লম্বা হবার। অনেকেই মনে করেন লম্বা হওয়ার প্রক্রিয়াটি বংশগত। আসলে কথাটি সত্য নয়। সঠিক জীবন যাপনে উচ্চতা একটু হলেও বৃদ্ধি করা যায়। শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধির উপায় এর জন্য নিম্নোক্ত বিষয়গুলি মানতে হবে।  

উচ্চতা বৃদ্ধির উপায়

ঘুম: 

শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমাতে হবে। কারন, রাতে ঘুমানোর সময় শরীরের পিটুইটারি গ্রন্থি থেকে গ্রোথ হরমোন উৎপন্ন হয়। ফলে উচ্চতা বৃদ্ধি পায়। এজন্য প্রতিদিন আট ঘন্টা ঘুমাতে হবে।  

সুষম খাদ্য: 

প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় থাকতে হবে সুষম খাদ্য। অর্থাৎ মাছ, মাংস, ডিম, দুধ, ডাল, বাদাম ইত্যাদি। শর্করাযুক্ত খাবার যেমন ভাত, রুটি ইত্যাদি এবং অন্যান্য ভিটামিন ও ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার ও খনিজ লবণসহ ভিটামিন ডি এর পরিমান বৃদ্ধি করতে হবে। কারন, ভিটামিন ডি হাড়ের গঠন বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে ফলে শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধি পায়।

ব্যায়াম

শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধির উপায় গুলোর মধ্যে ব্যায়াম অন্যতম। উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য ব্যায়াম অত্যন্ত জরুরি। কারন, প্রতিদিনের ব্যায়াম গ্রোথ হরমোন নিঃসরনে সাহায্য করে। যেকোনো ধরনের ব্যায়াম যেমন দড়ি লাফ, জাম্পিং, বাস্কেটবল, ভলিবল, সাইকেল চালানো ইত্যাদির অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। 

>> স্কিপিং বা দড়িলাফের পদ্ধতি, উপকারিতা এবং ক্ষতিকর দিক সমূহ জেনে নিন!

শরীরচর্চা: 

শরীর ভালো রাখতে যেমন নিয়মিত শরীর চর্চার বিকল্প নেই, তেমনি উচ্চতা বৃদ্ধির জন্যও শরীর চর্চার কোন বিকল্প নেই। নিয়মিত শরীর চর্চা করলে উচ্চতা এমনিতেই বৃদ্ধি পাবে। 

রোদ: 

হাড়ের বিকাশ এবং গঠনের জন্য ভিটামিন ডি এর প্রয়োজন রয়েছে। রোদে ভিটামিন ডি পাওয়া যায়। এজন্য প্রতিদিন সকাল দশ টা থেকে বিকাল তিনটার মধ্যে অন্তত ১০ থেকে ১৫ মিনিট রোদে থাকতে হবে। কারণ শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য ভিটামিন ডি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। 

স্বাস্থ্যকর দেহভঙ্গি: 

সঠিক ভাবে সোজা হয়ে বসলে দেহের উচ্চতা বৃদ্ধি পায়। চলাফেরার ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য। তাই কুঁজো না হয়ে মেরুদণ্ড  সোজা করে বসতে হবে এবং চলাফেরা করতে হবে। 

অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস বর্জন করা: 

অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস শরীরের ওপর প্রভাব ফেলে। তাই জীবন থেকে অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস ত্যাগ করে স্বাস্থ্যকর অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। ফলে উচ্চতা বৃদ্ধি পাবে। 

>> মস্তিষ্কের জন্যে ক্ষতিকর অভ্যাস গুলো দূর করে নিজেকে পরিবর্তন করার উপায়

আত্মবিশ্বাসী হওয়া: 

মনকে সতেজ রাখতে হলে সব সময় হাসি খুশি থাকতে হবে। নিজের প্রতি আত্ববিশ্বাস রাখুন। কেননা আত্মবিশ্বাস শরীর ও মনের ওপর  ইতিবাচক ভুমিকা রাখে।

এছাড়াও প্রচুর পরিমানে সবুজ শাক সবজি যেমন ব্রকলি, শীমের বীচি, মিস্টি কুমড়ার বীজ, শালগম ইত্যাদি খেতে হবে।  এবং প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল খেতে হবে। পাশাপাশি দৈনিক ৭ থেকে ৮ কেজি পানি পান করুন। 

শেষ কথা:

শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধির উপায় হিসেবে ওপরে উল্লেখিত বিষয় গুলি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য উচ্চ মানের ভিটামিন যুক্ত খাবারের সাথে পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমাতে হবে। বিশেষজ্ঞদের মতে, ঘুমানোর সময় উচ্চতা বৃদ্ধির প্রক্রিয়া তরান্বিত হয়। এছাড়াও নিয়মিত শরীর চর্চা করলে উচ্চতা এমনিতেই বৃদ্ধি পাবে। 

শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top