স্কিপিং বা দড়িলাফের উপকারিতা

স্কিপিং বা দড়িলাফের পদ্ধতি, উপকারিতা এবং ক্ষতিকর দিক সমূহ জেনে নিন!

স্কিপিং বা দড়িলাফের উপকারিতা – অনেকে ফিট থাকার জন্য ব্যায়াম করার কথা ভাবলেও কাজের ব্যস্ততার কারণে জিমে যেতে পারেন না। যদি আমরা বলি যে ফিট থাকতে জিমে যাওয়ার দরকার নেই, শুধুমাত্র ঘরে বসে স্বাস্থ্যের যত্ন নেওয়া যেতে পারে। আপনি হয়তো বিশ্বাস করবেন না, তবে অবাস্তব মনে হলেও এটি সম্ভব। 

ব্যায়াম করার জন্য বাড়িতে কিছু সময় ব্যয় করে শরীরকে ফিট রাখা যায়। আর এর জন্য স্কিপিং বা দড়িলাফ হলো সেরা উপায়। স্কিপিং বা দড়িলাফ করার ফলে পুরো শরীরকে ফিট রাখা যায়। তবে এর পাশাপাশি পুষ্টিকর ডায়েট নেওয়াও গুরুত্বপূর্ণ। 

অনেক শারীরিক ও মানসিক সমস্যা ব্যায়ামের মাধ্যমে দূরে রাখা সম্ভব। হেলদি-স্পোর্টসের এই নিবন্ধ আপনাকে স্কিপিং বা দড়িলাফের পদ্ধতি, উপকারিতা এবং ক্ষতিকর দিক সমূহ জানতে সহায়তা করবে।

আসুন তবে স্কিপিং বা দড়িলাফের উপকারিতা কি হতে পারে জেনে নি।

স্কিপিং বা দড়িলাফের উপকারিতা 

স্কিপিং বা দড়িলাফের উপকারিতা

সঠিক সময় এবং সঠিক নিয়মে স্কিপিং বা দড়িলাফ দেওয়া প্রত্যেকের পক্ষে উপকারী হতে পারে। যেমনঃ

কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্য উন্নত

স্কিপিং বা দড়িলাফ হার্টকে সুস্থ রাখে। এটি হার্টের সক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে পারে। দড়িলাফ কার্ডিওভাসকুলার উন্নত করে, যা রক্ত ​​পাম্প করার জন্য প্রয়োজনীয়। হার্ট স্ট্রোক এবং হার্ট সম্পর্কিত অন্যান্য ঝুঁকিগুলো হার্টকে সুস্থ রাখার মাধ্যমে এড়ানো যায়। এই কারণে স্কিপিং বা দড়িলাফ কার্ডিও অনুশীলনের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করুন।

ক্যালোরি বার্ন করতে সহায়ক

যদি কেউ স্থূলত্ব হ্রাস করতে চান, তবে দড়িলাফ তাদের পক্ষে উপকারী হতে পারে। দড়ি লাফ দেওয়া দেহে্র অতিরিক্ত ক্যালোরি পোড়াতে সহায়তা করে।

হাড়ের ঘনত্ব বৃদ্ধি করা

আজকাল অনেক লোক অস্টিওপোরোসিস এবং এর সাথে সম্পর্কিত সমস্যার সাথে লড়াই করছেন। এই অবস্থায় হাড়গুলো এতটাই দুর্বল হয়ে যায় যে সামান্য ধাক্কায়ও ভেঙে যেতে পারে। নিয়মিত স্কিপিং বা দড়িলাফের মাধ্যমে হাড় শক্ত ও মজবুত হয়।

মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য স্কিপিং বা দড়িলাফের উপকারিতা

শারীরিক ক্রিয়াকলাপ মানসিক স্বাস্থ্যের উপর প্রভাব ফেলে থাকে। এনসিবিআইয়ের প্রকাশিত সমীক্ষা অনুসারে, যে সমস্ত লোক খুব বেশি শারীরিক কার্যকলাপ করে না, তারা হতাশা বা ডিপ্রেশনের মধ্যে থাকে। একই সঙ্গে, স্কিপিং বা দড়িলাফের মতো বেশি শ্রম অনুশীলনকারীদের মধ্যে হতাশা বা ডিপ্রেশনের  লক্ষণগুলো কম পাওয়া গেছে।

>> পুশ-আপ বা বুক ডাউন এর উপকারিতা জেনে নিন!

স্কিপিং করার নিয়ম

স্কিপিং বা দড়িলাফের অনেকগুলো নিয়ম রয়েছে তবে এর কয়েকটি বেশ কঠিন। নিচে আমরা স্বাভাবিক থেকে কঠিন পদ্ধতি উল্লেখ করেছি।

  • দুই পায়ে দড়িলাফ (Two leg jump rope) – উভয় পা একসাথে করে দড়িলাফ দেয়া সহজ। যারা প্রথমবারের জন্য দড়িলাফের কথা ভাবছেন, তারা এইভাবে শুরু করতে পারেন।
  • এক পায়ে দড়িলাফ (Single-Leg Jump) – উপরের ধাপ টি ঠিকঠাক ভাবে সম্পূর্ণ করার পরে এই পদ্ধতিটি করা যেতে পারে। যদি আপনি নতুন হয়ে থাকেন তাহলে প্রথমেই এটি চেষ্টা করবেন না।
  • ক্রসিং হ্যান্ড জাম্প (Crossing hand jump) – এ জাতীয় দড়িলাফ বেশ কঠিন। এই পদ্ধতিটি করার সময় দড়ি পায়ে আটকে যাওয়ার ভয় থাকে। সুতরাং, শুধুমাত্র অভিজ্ঞ ব্যক্তিরা এই পদ্ধতিটি করতে পারেন।

দ্রষ্টব্য: আপনি যদি প্রথমবার দড়িলাফ বা স্কিপিং অনুশীলন করেন তবে শুরুতে কম গতিতে উভয় পা দিয়ে শুরু করুন।

স্কিপিং বা দড়িলাফ এর সঠিক সময় –

অনুশীলনের জন্য যেমন একটি নির্দিষ্ট সময় থাকে, তেমনিভাবে দড়িলাফ দেওয়ার উপযুক্ত সময়টি হলো সকালে। এটি সারা শরীর জুড়ে রক্ত ​​সঞ্চালনের উন্নতি করতে পারে। এছাড়া আপনি সন্ধ্যায়ও দড়িলাফ দিতে পারেন। 

>> বাড়িতে জিম করার নিয়ম জেনে নিন – নিজেকে রাখুন ১০০% ফিট

যাদের দড়িলাফ দেয়া উচিত নয়? 

এতক্ষণ আমরা স্কিপিং বা দড়িলাফের উপকারিতা ও নিয়ম জেনেছি। এবার চলুন জেনে নি যাদের দড়িলাফ দেয়া উচিত নয়ঃ

  • যারা যেকোন ধরণের হৃদরোগের সাথে লড়াই করছেন, তাদের জন্য দড়িলাফ থেকে বিরত থাকা উচিত।
  • ইতিমধ্যে যদি আপনার বড় কোন অস্ত্রপাচার বা অপারেশন করা হয়ে থাকে, তবে দড়িলাফ এড়ানো উচিত।
  • উচ্চ রক্তচাপের রোগিদের দড়িলাফ দেয়া উচিত নয়। আর যদি এটি করতে চান তবে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।
  • হাঁপানির সাথে লড়াই করা লোকদের দড়িলাফ দেয়া উচিত নয়, কারণ এটি শ্বাসকষ্টের কারণ হতে পারে।
শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top