Sergel 20

SERGEL 20 কীসের জন্য এত জরুরি? এর উপকারিতা ও ব্যবহার!

Sergel 20 একটি প্রোটন পাম্প ইনহিবিটর। অর্থাৎ এটি পাকস্থলীর সমস্যায় ব্যবহৃত একটি ঔষধ। আমাদের পাকস্থলির গ্যাস্ট্রিক প্যারাইটাল কোষে অবস্থিত ক্ষতিকর ও অপ্রয়োজনীয় এনজাইমকে বাধাগ্রস্ত করে এটি। 

সার্জেল 20 সাধারণত বুক জ্বালাপোড়া, আলসার ইত্যাদি রোগের উপশম হিসেবে কাজ করে। পাঠকদের জন্য আজকের আলোচনায় Sergel 20 নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

Sergel 20 এর উপকারিতা

গ্যাস্ট্রিক সহ নানা ধরনের অসুস্থতা ভোগ করে থাকে সবাই। সার্জেল 20 গ্যাসের সমস্যা দীর করতে দারুণ কার্যকরী। এছাড়াও আরো বিভিন্ন রোগের উপশম উপশম হিসেবে কাজ করে এই ঔষধ। 

  • বুক জ্বালাপোড়া করা
  • পেপটিক আলসার
  • ডিউডেনাল এবং গ্যাস্ট্রিক আলসার
  • গ্যাস্ট্রোইসোফিগাল রিফ্লাক্স রোগ
  • ডিসপেসিয়া

Sergel 20 অন্যান্য যেসব রোগে কাজ করে

আমাদের নাম না জানা অনেক গ্যাস্ট্রিক জনিত রোগের আপাতত সমাধান হতে পারে এই ঔষধ। সেগুলো হলো:

  • গ্যাস্ট্রো ইসােফেগাল রােগ। 
  • ইরােসিভ ইসােফেগাইটিস রােগসমূহ নির্মূল।
  • ডিওডেনাল আলসার। 
  • হ্যালিকোবেটার পাইলােরী নির্মূলে (ট্রিপল থেরাপি) ইসােমিপ্রাজল ব্যবহৃত হয় । 
  • এসিড সম্পর্কিত ডিসপেসিয়া।
  • ডিওডেনাল অথবা গ্যাস্ট্রিক আলসার। 
  • জলিঞ্জার-ইলিশন সিনড্রোম এর চিকিৎসায়।

Sergel 20 ব্যবহারে সতর্কতা

সবধরনের ঔষধের ক্ষেত্রেই কিছু সতর্কতা মেনে চলতে হয়। সার্জেল 20 ঔষধ সেবনে যেসব সতর্কতা অবলম্বন করবেন তা হলো:

  • ইসােমিপ্রাজল গ্যাস্ট্রিক আলসারে ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই ডোজ গ্রহণের সম্ভাব্যতা যাচাই করে নিতে হবে।
  • ইসােমিপ্রাজল ব্যবহারের সময় ফেটিয়েন, ওয়ারফেরিন, কুইনিডিন, ক্ল্যারিথ্রোমাইসিন, এমােক্সিসিলিন এর মিথস্ক্রিয়ার কোন প্রমাণ নাই। তবে অন্য ঔষধের সাথে মিশ্রণে সমস্যা হতেও পারে।
  • ডায়াজিপামের সাথে ইসােমিপ্রাজল ব্যবহারের ক্ষেত্রে ডায়াজিপামের নিঃস্বরণ প্রক্রিয়া বিলম্ব হতে পারে। ইসােমিপ্রাজল কিটোকোনাজল, ডিগােক্সিন এবং লৌহ জাতীয় ঔষধের শােষণের ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি করতে পারে।
  • হালকা থেকে মাঝারি হেপাটিক অপ্রতুলতাযুক্ত রোগীদের জন্য সার্জেল 20 ডোজ গ্রহণ করার পরামর্শ দেওয়া হয় না। তবে গুরুতর হেপাটিক সমস্যার রোগীদের মধ্যে একবারে সর্বোচ্চ ২০ মিলিগ্রাম ডোজ অতিক্রম করা উচিত নয়।   

বৈপরীত্য ও বিশেষ ক্ষেত্রে ব্যবহার

সার্জেল 20 ট্যাবলেট খাওয়ার আগে খালি পেটে গ্রহণ করতে হবে, পেটের অভ্যন্তরীণ  অঙ্গে সমস্যার রোগীদের ক্ষেত্রে ঔষধটি ব্যবহার করা উচিত নয়।

শিশুদের ব্যবহারে বৈপরীত্য: তবে এ ঔষধের শিশুদের ক্ষেত্রে ব্যবহার ও নিরাপত্তা এখনও অনুমোদিত হয়নি। তাই শিশুরা গ্যাস্ট্রিকজনিত ঔষধ থেকে দূরে থাকবে।

বয়স্কদের ক্ষেত্রে: মাত্রা নিয়ন্ত্রণের প্রয়ােজন নেই কেননা বর্তমান সমাজ ব্যবস্থায় প্রচুর তেল ও মসলাযুক্ত খাদ্য গ্রহণে সবাই অভ্যস্ত। তাই যখনই পেটে সমস্যা মনে হয় সবাই না চাইতে একটি sergel 20 গ্রহণ করে।

যকৃতের গােলযােগ: যকৃত ক্রিয়ায় গােলযােগের ক্ষেত্রে ঔষধের অর্ধজীবন বেড়ে যেতে পারে তাই সেক্ষেত্রে মাত্রা নির্ধারণের প্রয়ােজন রয়েছে। এতে সর্বোচ্চ প্রয়ােগ মাত্রা হবে দৈনিক ২০ মি.গ্রা.। কেননা দেহের অভ্যন্তরীণ প্রতিরক্ষা ঐ মুহূর্তে এর বেশি ডোজ গ্রহণে প্রস্তুত থাকেনা।

মূত্র গােলযােগ: প্রসাবে সমস্যা হওয়ার ক্ষেত্রে মাত্রা নির্ধারণের প্রয়ােজন নেই।

Sergel 20 সেবনবিধি

এবার তাহলে Sergel 20 খাওয়ার পদ্ধতি গুলো জেনে আসি। ক্ষেত্র বিশেষে থাকছে আলাদা আলাদা পদ্ধতি: 

একটি কাপে ১৫ মি.লি. বিশুদ্ধ পানিতে সার্জেল 20 প্যাকেটের সম্পূর্ণ দানা মিশিয়ে ভালভাবে নাড়ন এবং ২-৩ মিনিট রেখে দিন, অতঃপর পুনরায় ভালোভাবে নাড়িয়ে সম্পূর্ণ মিশ্রণ একবারে সেবন করুন। 

সাসপেনশনটি ন্যাসােগ্যাস্ট্রিক বা গ্যাস্ট্রিক টিউব দ্বারা গ্রহণ করতে হলে ১৫ মি.লি. পানি মেশাতে হবে। অন্য কোন পানীয় বা খাদ্য ব্যবহার করা একদমই উচিত নয়। মিশ্রণটি ভালভাবে নাড়ার পর ২-৩ মিনিট রেখে দিন, অতঃপর পুনরায় ভালভাবে নাড়ার পর উপযুক্ত মাপের সিরিঞ্জ ব্যবহার করে ৩০ মিনিটের মধ্যে অবশ্যই টিউবে প্রবেশ করাতে হবে। টিউবের ভেতরের সাসপেনশনটি পুনরায় পানি দিয়ে পরিষ্কার করা উচিত।

সার্জেল 20 সম্বন্ধে ফার্মাকোলজিস্টরা বলে, ইসােমিপ্রাজল জাতীয় এ ঔষধে থাকা একটি প্রােটন পাম্প ইনহিবিটর যা গ্যাস্ট্রিক প্যারাইটাল কোষে অবস্থিত Hf/K’ ATPase এনজাইম সিস্টেমের সাথে মূলত কোভালেন্ট বন্ধনের মাধ্যমে যুক্ত এসিড নিঃস্বরণের প্রধান ধাপকে বাধাগ্রস্থ করে। 

ইসােমিপ্রাজল যা ওমিপ্রাজলের S-আইসােমার, প্রােটন পাম্প ইনহিবিটরের প্রথম একক অপটিক্যাল আইসােমার যা রেসিমিক প্রােটন পাম্প অপেক্ষাকৃত অধিকতর এসিড নিয়ন্ত্রণ করে।

sergel 20 এর অপকারিতা

যেকোনো ঔষধ সেবনের পূর্বে ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহণ না করলে এর সমস্যা হতে পারে,তাই কিছু অসুস্থতায় এ ঔষধ না গ্রহণ করতে বলা হচ্ছে। সমস্যা গুলো হলো:

সার্জেল 20 এর সাথে ফেটিয়েন, ওয়ারফেরিন, কুইনিডিন, ক্ল্যারিথ্রোমাইসিন, এমােক্সিসিলিন এর মিথস্ক্রিয়ার কোন প্রমাণ নাই। তাই এসব ক্ষেত্রেও Sergel গ্রহণ করা যাবে।

তবে ডায়াজিপামের সাথে ইসােমিপ্রাজল ব্যবহারের ক্ষেত্রে দেহের সাথে মিশ্রন প্রক্রিয়া বিলম্ব হতে পারে। মামবদেহে Sergel 20 ট্যাবলেট একসাথে কিটোকোনাজল, ডিগােক্সিন এবং লৌহ জাতীয় ঔষধের কাজের ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি করতে পারে।এ ঔষধের ক্ষেত্রে অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশু রোগীদের নিরাপত্তা  এবং কার্যকারিতা প্রতিষ্ঠিত হয়নি।

   

শেষকথা 

sergel 20 প্রতিটি ট্যাবলেটের মূল্য ৭ টাকা, ১০০ পিসের প্রতি প্যাকেটের মূল্য ৭০০ টাকা। যাদের প্রচুর গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা তাদের এই ঔষধ ছাড়া গতি নেই। তাই নিয়ম মেনে সঠিকভাবে sergel 20 গ্রহণ করুন। তবে প্রাকৃতিক উপায়ে এসব গ্যাসজনিত রোগের সমাধান হতে পারে কাঁচা পেঁপে।

আপনার মনে কোন প্রশ্ন থাকলে এখানে ক্লিক করুন!

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top